• মঙ্গলবার   ২৫ জানুয়ারি ২০২২ ||

  • মাঘ ১২ ১৪২৮

  • || ২০ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

সর্বশেষ:
শাবির প্রথম বর্ষের ভর্তি কার্যক্রম স্থগিত জৈন্তাপুরে ছেলের হাতে মা খুন! বিশ্ব দরবারে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করেছে পুলিশ : প্রধানমন্ত্রী শাবিতে ভিসি’র বাসবভনের সামনে খাটে শুয়ে অনশনের প্রস্তুতি শাবিতে আন্দোলন : ১৬ জন হাসপাতালে জেলা ভোগ্যপণ্য পরিবেশক গ্রুপের সাধারণ সভা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রচেষ্টায় সিলেটে হচ্ছে ‘ওয়াসা’
১৩০

‘আমি নয়ন বন্ড শফিক রেজা, খাই শুধু গাঁজা’

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ৭ ডিসেম্বর ২০২১  

বরগুনায় আলোচিত এক নাম ছিল নয়ন বন্ড। কিন্তু রিফাত হত্যা মামলায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন তিনি। দীর্ঘদিন এ নামের অস্তিত্ব না থাকলেও হঠাৎ নিজেকে নয়ন বন্ডের ভক্ত দাবি করেছেন এক তরুণ। শুধু তাই নয়, বরগুনা সরকারি কলেজে প্রকাশ্যে গাঁজা সেবনের একটি ভিডিও ফেসবুকে ছেড়েছেন।

শনিবার বেলা ১১টার দিকে ফেসবুকে বরগুনা সিটি নামের একটি পেজে ভিডিওটি আপলোড করা হয়। কলেজ চলাকালীন ক্যাম্পাসে প্রকাশ্যে গাঁজা সেবনের এমন ভিডিও আপলোড করেছেন ওই তরুণ।

ভিডিওতে ওই তরুণ নিজেকে ‘শফিক বন্ড’ দাবি করে ‘আমি কারো ধার ধারি না...’ এমন একটি গানও পরিবেশন করেন। কলেজ ক্যাম্পাসে এমন বখাটেপনার দৃশ্য ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে নিন্দার ঝড় ওঠে।

এক মিনিট ৪৩ সেকেন্ডের ভিডিওতে শেষের দিকে গিয়ে ওই তরুণ নিজের নাম প্রকাশ করে বলেন, ‘আমি কি মামা চিনোছ না, বরগুনা আমার, নয়ন বন্ড ওরফে শফিক রেজা, সারাদিন খাই গাঁজা।’

জানা গেছে, স্বঘোষিত এ বন্ড শফিক রেজার বাড়ি পাথরঘাটা উপজেলার কালমেঘা ইউনিয়নের কালমেঘা গ্রামে। তার বাবার নাম হারুন, মায়ের নাম রাশেদা বেগম। তবে শফিকের নানি সুফিয়া বেগম বলেন, মাদকাসক্ত হলেও শফিক কোনো অপরাধের সঙ্গে জড়িত নয়।

বরগুনা সরকারি কলেজের সাবেক শিক্ষার্থী জুনায়েদ জুয়েল বলেন, ভিডিওতে দেখলাম সরকারি কলেজের অধ্যক্ষের কার্যালয়ের ভবনের সামনেই রোভার স্কাউটের পাশের সড়কে গাঁজা সেবন করে অশ্রাব্য ও অশ্লীল বাক্যে র‌্যাপ গাইছে এক মাদকাসক্ত। এটা কি কলেজ কর্তৃপক্ষের নখদর্পণে নেই? রিফাত শরীফ হত্যার উদাহরণ টেনে এখনই এদের লাগাম টানা উচিত বলে মন্তব্য করেন তিনি।

বিষয়টি জানার পর বরগুনা সদর থানায় জিডি করেছেন বলে জানিয়েছেন বরগুনা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মতিউর রহমান। বখাটেদের আড্ডা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বখাটে তো দূরে থাক, আইডি কার্ড চেক করে কলেজে শিক্ষার্থীদের ঢোকানো হয়। এরপরও নজরদারি বাড়ানো হয়েছে।

বরগুনা সদর থানার ওসি কেএম তারিকুল ইসলাম বলেন, অধ্যক্ষ আমাদের সহযোগিতা চাইলে আমরা আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় সব সহযোগিতা দিতে প্রস্তুত।

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার