• শনিবার   ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||

  • আশ্বিন ৩ ১৪২৮

  • || ০৯ সফর ১৪৪৩

সর্বশেষ:
দোয়ারাবাজারে বিভিন্ন কর্মসূচি পরিদর্শনে অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার অবশেষে শুরু হচ্ছে সিলেটের সেই দুই সড়কের সংস্কারকাজ করোনা: ফের মৃত্যুর মিছিলে সিলেটে সিলেট জেলা ছাত্রলীগের প্রথম সভাপতি ফয়জুল আর নেই

গোলাপগঞ্জে ডাকাত নিহতের ঘটনায় ৩ মামলা

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১  

গোলাপগঞ্জে গণপিটুনীতে ডাকাত নিহতের ঘটনায় তিনটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। ডাকাতি, গণপিটুনী ও অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় তিনটি পৃথক মামলা দায়ের করা হয়। ডাকাতির ঘটনায় উপজেলার ঢাকাদক্ষিণ ইউনিয়নের মিশ্রপাড়া গ্রামের জ্ঞান সেনের ছেলে দুলাল সেন (৪০) বাদি হয়ে ৪/৫জনকে অজ্ঞাত রেখে গোলাপগঞ্জ মডেল থানায় মামলা (নং-১৩/১২.০৯.২০২১) দায়ের করেন, গণপিটুনিতে ডাকাত আরিফ নিহতের ঘটনায় পুলিশ বাদি হয়ে ৩০০/৪০০জনকে অজ্ঞাত করে মামলা (নং-১৫/১৩.০৯.২০২১) দায়ের করেন। এছাড়াও আগ্নেয়াস্ত্র ও দেশীয় অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় পুলিশ বাদি হয়ে অস্ত্র আইনে আরও একটি মামলা (১৪/১৩.০৯.২০২১) দায়ের করেছে।

এ ঘটনায় জড়িত সুহেল আহমদ (২২) নামে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে গোয়াইনঘাট থানা পুলিশ। রোববার বিকালে গোয়াইনঘাট উপজেলার ডৌবাড়ী ইউনিয়নের লংপুর গ্রামে উপ পরিদর্শক আব্দুল আহাদের নেতৃত্ব অভিযান পরিচালনা করে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে ঘটনায় সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করেছে বলে জানা যায়। গ্রেফারকৃত সুহেল গোয়াইনঘাট উপজলার ডৌবাড়ী ইউনিয়নের নগর ডেংরী গ্রামের আব্দুর রহমানের ছেলে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে গোলাপগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ চৌধুরী বলেন, একজন কে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এঘটনায় জড়িতদের আইনের আওতায় আনতে পুলিশ তৎপর রয়েছে।

এদিকে এরিপোর্ট লেখা পর্যন্ত গণপিটুনিতে নিহত আরিফের লাশ সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রয়েছে। আইনি প্রক্রিয়া শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে বলে জানা যায়।

এরআগে রোববার গভীর রাত ৩টার দিকে গেইট ভেঙ্গে ৫/৬জনের সংঘবদ্ধ ডাকাতদল ঢাকাদক্ষিণ ইউনিয়নের মিশ্রপাড়া গ্রামে স্থানীয় জ্ঞান সেনের পরিবারের সদস্যদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ঘরে সংরক্ষিত মালামাল লুটপাট করে। ডাকাতরা ঘরে থাকা নগদ ২লক্ষ টাকা, ক্যামেরা, ১হাজার কানাডিয়ান ডলার, ৫ভরি স্বর্ণ নিয়ে যায় বলে জানান জ্ঞান সেনের ছেলে দুলাল সেন।

পরে ভোররাতে ডাকাতি শেষে সংঘবদ্ধ ডাকাতদল উপজেলার ঢাকাদক্ষিণ ইউপির পশ্চিম দত্তরাইল জামে মসজিদের ইমামকে জিম্মি করে তাঁর কামরায় আশ্রয় নেয়। মসজিদের ইমাম বিষয়টি কৌশলে স্থানীয়দের অবগত করলে তাঁরা এগিয়ে এসে ডাকাতদলকে ঘিরে ফেলে। এসময় ডাকাতরা এলোপাথাড়ি গুলি ছুড়ে ২জন পালিয়ে যায়। স্থানীয়দের ধাওয়ায় আহত হয়ে অন্যান্য ডাকাতরা পালিয়ে গেলেও গণপিটুনির শিকার হয়ে গোয়াইনঘাট উপজের ডৌবাড়ী ইউনিয়নের নগর ডেংরী গ্রামের মইন উদ্দিনের ছেলে আরিফ আহমদ ঘটনাস্থলেই নিহত হয়। এসময় তাদের ছোড়া গুলিতে ও আক্রমণে স্থানীয় ৫ ব্যক্তি আহত হয়েছেন। বর্তমানে তারা সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন।

এঘটনায় সিলেট রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি বিপ্লব বিজয় তালুকদার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মিয়া মোহাম্মদ আশিস বিন হাসান পিপিএম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গোলাপগঞ্জ সার্কেল) রাশেদুল হক চৌধুরী, গোলাপগঞ্জ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ হারুনুর রশীদ চৌধুরী, সিলেট জেলা ডিবি পুলিশ পরিদর্শক (উত্তর) সাইফুল আলম রোকনসহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার