• বুধবার   ৩০ নভেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৬ ১৪২৯

  • || ০৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

সর্বশেষ:
শান্তিগঞ্জে সুপেয় পানি পাবে ১৬০০ পরিবার নিউইয়র্কের পুলিশ অফিসার বড়লেখার তৌফিকের কৃতিত্ব শেষ ষোলোয় টিকে থাকতে রাতে মাঠে নামছে আর্জেন্টিনা জঙ্গি ছিনতাই: আরও এক পুলিশ সদস্য বরখাস্ত সুনামগঞ্জ সীমান্ত থেকে দেড় কোটি টাকার তক্ষক জব্দ ঠান্ডায় হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে বাড়ছে শিশু রোগীর চাপ হবিগঞ্জে ভুলে ভরা প্রশ্নপত্রে বার্ষিক পরীক্ষা!
৩৭৪

মানুষ কেন নাক খোঁটে?

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ২৯ অক্টোবর ২০২২  

‘নাক খোঁটা’ দেখলেই অভক্তি লাগে! কিন্তু আমরা সবাই কম-বেশি নাক খুঁটি। কেন নাকের ভিতরে আঙুল ঢোকানো হয়, তা নিয়ে বৈজ্ঞানিক গবেষণাও খুব কম। অথচ এই তথাকথিত নোংরা বিষয়টির পিছনেও রয়েছে বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা।

বার্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক, অ্যানি ক্লেয়ার ফাব্রে এক দিন এক বন্যপ্রাণীর কাণ্ড দেখে বিষয়টির উৎস অনুসন্ধান করার সিদ্ধান্ত নেন। অ্যানি দেখেন, মাডাগাস্করের আয়-আয় নামের একটি প্রাণী প্রায়শই আঙুল ঢোকায় নাকে। মানুষের মতোই এই প্রাণীটিও একটি প্রাইমেট।

সরলভাবে বললে, মানুষ, হনুমান বা বাঁদরের মতো প্রায় ২০০ প্রকার প্রাণীকে প্রাইমেট বলা হয়। অ্যানি খেয়াল করেন, ওই প্রাণীটি নিজের হাতের সবচেয়ে লম্বা আঙুলটি নাকে ঢোকায়। এর পর তিনি প্রাণীটির সিটি স্ক্যান করেন। দেখা যায় নাকের গহ্বর পেরিয়ে প্রায় গলা পর্যন্ত ঢুকে যায় তার আঙুল।

বিজ্ঞান পত্রিকা ‘জার্নাল অফ জুলজি’-তে প্রকাশিত গবেষণাপত্রে প্রকাশিত হয়েছে তার এই গবেষণা। গবেষণাপত্রে অ্যানির নেতৃত্বে এক দল গবেষক খুঁজে দেখেছেন, শুধু মানুষ নয়, মোট ১২ ধরনের প্রাইমেট প্রাণী নাক খোঁটে। কাজেই এই অভ্যাসের শিকড় লুকিয়ে থাকতে পারে বিবর্তনে। আর বিবর্তনের মাধ্যমে কোনও অভ্যাস তৈরি হলে সাধারণত কোনও না কোনও বিশেষ কারণ থাকে তার পেছনে।

তবে কার্যগত ভাবে নাক খোঁটার ভূমিকা কী, তা নিয়ে নিশ্চিত নন গবেষকরা। আসলে বিষয়টি নিয়ে প্রচুর হাসি-ঠাট্টা করা হলেও গবেষণার পরিমাণ একেবারেই নগণ্য। তাই বিষয়টি নিয়ে আরও গবেষণার প্রয়োজন রয়েছে বলে দাবি করেছেন গবেষকরা।

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার