• রোববার   ২৯ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৫ ১৪২৯

  • || ২৬ শাওয়াল ১৪৪৩

সর্বশেষ:
নেই বৈধ কাগজ, বন্ধ ৫ টি ডায়াগনস্টিক সেন্টার সরকারের খাদ্য সহায়তা পেল সিলেটের ১৩ হাজার পরিবার শাহজালাল মাজারে ওরস উপলক্ষে ‘লাকড়ি তোড়া’ উৎসব ১২ ঘণ্টায় ৭ নবজাতকের জন্ম! জাফলং গিলছে বালুখেকোরা, অভিযান-জরিমানা সেমিফাইনালে মাধবপুর বালিকা দল
৩০

‘মহাকাশ থেকে আসা’ ৫৫৫ ক্যারেটের সেই ব্ল্যাক ডায়মন্ডের প্রদর্শনী

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ১৯ জানুয়ারি ২০২২  

সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ে সোমবার থেকে শুরু হয়েছে ৫৫৫ দশমিক ৫৫ ক্যারেটের বিরল এক ব্ল্যাক ডায়মন্ডের প্রদর্শনী। ‘মহাকাশ থেকে আসা’ দ্য এনিগমা নামের ৫৫৫.৫৫ ক্যারেটের এই কালো হীরাটি বিশ্বের সবচেয়ে বড় ব্ল্যাক ডায়মন্ড।

নিউইয়র্ক ভিত্তিক বহুজাতিক নিলাম সংস্থা সোথেবি'স অকশন হাউসের পক্ষ থেকে এটিকে দুবাইয়ের এই প্রদর্শনীতে তোলা হয়েছে। দুবাইয়ের পর লস অ্যাঞ্জেলেস ও লন্ডনেও তারা এটি প্রদর্শন করবে। আগামী ৩ থেকে ৯ ফেব্রুয়ারি লন্ডনে এটি বিক্রির জন্য অনলাইন নিলামে তোলা হবে। সেখানে ৬৮ লাখ ডলারে (৫০ লাখ ব্রিটিশ পাউন্ড) হীরাটি বিক্রি হবে বলে আশা করা হচ্ছে।


নিলাম সংস্থাটি জানিয়েছে, তারা এর পেমেন্ট হিসেবে ক্রিপ্টোকারেন্সি গ্রহণ করবে।

সংস্থাটির রত্ন ও অলঙ্কার বিশেষজ্ঞ সোফি স্টিভেন্স। তিনি জানান, ২৬০ কোটি বছর আগে যখন একটি উল্কা পৃথিবীতে আঘাত করেছিল তখন এই ব্ল্যাক ডায়মন্ডটি তৈরি হয়েছিল বলে মনে করা হয়। কিংবা পৃথিবীতে আঘাত হানা হীরা বহনকারী কোনও গ্রহাণু থেকে এসেছে এটি।

সোথেবি'স অকশন হাউস বলছে, এই আকৃতির প্রাকৃতিক কালো হীরা পৃথিবীতে খুবই বিরল।

ব্ল্যাক ডায়মন্ড, কার্বোনাডো ডায়মন্ড নামেও পরিচিত। সিএনএন-এর খবরে বলা হয়েছে, দ্য এনিগমা নামে পরিচিতি পাওয়া এই কালো হীরাটি ২.৬ থেকে ৩.৮ বিলিয়ন বছর আগের হতে পারে। এতে নাইট্রোজেন ও হাইড্রোজেনের পরিমাণও শনাক্ত হয়েছে।

সোথেবি'সের গয়না বিশেষজ্ঞ নিকিতা বিনানি হীরাটিকে ‘একটি সত্যিকারের প্রাকৃতিক ঘটনা’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন।

দ্য এনিগমার আকৃতি মধ্যপ্রাচ্যের নিরাপত্তার প্রতীক হামসার আদলে। ৫৫৫.৫৫ ক্যারেটের পাশাপাশি এটিতে ঠিক ৫৫ টি দিক বা মুখ রয়েছে।

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার