ব্রেকিং:
স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে সাংবাদিকদের স্মার্ট হতে আহ্বান শফিক চৌধুরীর পিনাকীসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে সিলেটে মামলা দেশকে এগিয়ে রাখতে শিক্ষার গুরুত্ব অনেক বেশি: সিসিক মেয়র জাতীয় গ্রীডে যুক্ত হলো সিলেটের আরও ১৮ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস সংরক্ষিত ৪৮ আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছে আ.লীগ মনোনীতরা গ্রামীণ উন্নয়নে আওয়ামিলীগ সরকার সবসময় আন্তরিক : ইমরান আহমদ দেশে রিজার্ভ সংকট নেই, উন্নয়ন কার্যক্রম চলমান : গণপূর্তমন্ত্রী প্রতিটি উপজেলায় মিনি স্টেডিয়াম নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে : পাপন কুলাউড়ায় ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাত নারীর মৃত্যু শেখ হাসিনার দর্শন:ভিশন ও নেতৃত্ব,উন্নয়নের চাবিকাঠি’ বই ড. মোমেনের দেশে আন্দোলনের কোনো ইস্যু নেই: কাদের অঙ্গীকার পূরণে এলাকার জন্য ২০ কোটি করে টাকা পাচ্ছেন এমপিরা মাথায় গুরুতর আঘাত পেয়ে হাসপাতালে মুস্তাফিজ মঙ্গলবার থেকে সিলেটসহ সারাদেশে বৃষ্টির আভাস, ফের বাড়তে পারে শীত! প্রতি সপ্তাহে বুধবার বসবে ভোলাগঞ্জ বর্ডার হাট! সিলেটে গ্যাস ও তেল নিয়ে মিললো আরও সুসংবাদ শেখ হাসিনা ও জেলেনস্কির বৈঠক, কৃতজ্ঞতা জানিয়ে জেলেনস্কির টুইট
  • সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ১২ ১৪৩০

  • || ১৪ শা'বান ১৪৪৫

সর্বশেষ:
মাথায় গুরুতর আঘাত পেয়ে হাসপাতালে মুস্তাফিজ সিলেটে ‘বর্জ্য পৃথকীকরণ প্ল্যান্ট’ উদ্বোধন করলেন এলজিআরডি মন্ত্রী শেখ হাসিনা ও জেলেনস্কির বৈঠক, কৃতজ্ঞতা জানিয়ে জেলেনস্কির টুইট সিলেটে গ্যাস ও তেল নিয়ে মিললো আরও সুসংবাদ মঙ্গলবার থেকে সিলেটসহ সারাদেশে বৃষ্টির আভাস, ফের বাড়তে পারে শীত! স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে সাংবাদিকদের স্মার্ট হতে আহ্বান শফিক চৌধুরীর দেশকে এগিয়ে রাখতে শিক্ষার গুরুত্ব অনেক বেশি: সিসিক মেয়র অঙ্গীকার পূরণে এলাকার জন্য ২০ কোটি করে টাকা পাচ্ছেন এমপিরা দেশে আন্দোলনের কোনো ইস্যু নেই: কাদের শেখ হাসিনার দর্শন:ভিশন ও নেতৃত্ব,উন্নয়নের চাবিকাঠি’ বই ড. মোমেনের দেশে রিজার্ভ সংকট নেই, উন্নয়ন কার্যক্রম চলমান : গণপূর্তমন্ত্রী পিনাকীসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে সিলেটে মামলা প্রতিটি উপজেলায় মিনি স্টেডিয়াম নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে : পাপন গ্রামীণ উন্নয়নে আওয়ামিলীগ সরকার সবসময় আন্তরিক : ইমরান আহমদ সংরক্ষিত ৪৮ আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছে আ.লীগ মনোনীতরা জাতীয় গ্রীডে যুক্ত হলো সিলেটের আরও ১৮ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস
১২০৩

সিলেট শহরে মাছ শিকার উৎসব!

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ১ অক্টোবর ২০২৩  

ইটপাথরের সিলেট নগরে খুব বেশি সুযোগ নেই চিত্তবিনোদনের। ভারত সরকারের অর্থায়নে সংস্কার ও চারপাড়ে ওয়াকওয়ে নির্মাণের পর নগরবাসীর বিনোদনের আকর্ষণ হয়ে দাঁড়িয়েছে ঐতিহ্যবাহী ধোপাদিঘী। সিটি করপোরেশনের তত্তাবধানে শতবছরের পুরনো দিঘীটি পেয়েছে নান্দনিক রূপ। দিঘীটি সংস্কার করে কয়েক লাখ টাকার মাছের পোনা ছেড়েছিল সিটি করপোরেশন। সম্প্রতি দিঘীসহ ওয়াকওয়েটি ইজারা দেওয়া হয়েছে। আর ইজারাদাররা ধোপাদিঘীতে মাঝে মধ্যে আয়োজন করছেন মাছ শিকার উৎসবের। নগরের সৌখিন মৎস্য শিকারিরা এই উৎসবে অংশ নিয়ে সারাদিন মাছ শিকার করছেন।

সিলেট পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারের পূর্ব পাশের সীমানা দেওয়ালঘেঁষা বিশাল দিঘী। কয়েকশত বছরের পুরনো এই জলাধারটি ‘ধোপাদিঘী’ নামেই পরিচিত। অযত্ম অবহেলায় পড়ে থাকা দিঘীটি একসময় কচুরিপানায় ঢেকে গিয়েছিল। ভরাটও হয়েছিল দিঘীটি। কয়েক বছর আগে দিঘীটি সংস্কার ও চারপাশে ওয়াকওয়ে নির্মাণের একটি প্রকল্প গ্রহণ করে সিটি করপোরেশন। তাতে অর্থায়ন করে ভারত সরকার। ভারত সরকারের অর্থায়নে একসময়ের মজাপুকুরটি এখন সিলেট নগরীর অন্যতম দর্শনীয় স্থানে পরিণত হয়েছে। নান্দনিক রূপ পেয়েছে ধোপাদিঘী। সংস্কারের সময় দিঘীটিতে বিভিন্ন জাতের কয়েক লাখ টাকার মাছের পোনা ছেড়েছিল সিটি করপোরেশন।

সম্প্রতি সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে পাঁচ বছরের জন্য দিঘী ও ওয়াকওয়ে ইজারা দেয়া হয়েছে। ইজারাদাররা দিঘীর মাছ ধরার জন্য বড়শি দিয়ে মাছ শিকারের আয়োজন করছেন। গত ২ সেপ্টেম্বর প্রথমবারের মতো আয়োজন করা হয় মাছ শিকার উৎসবের। ওইদিন ১০ হাজার টাকা করে টিকেট কেটে শিকারিরা মাছ ধরেন। প্রত্যেক শিকারি সেদিন নানা জাতের দেড় থেকে দুইমণ মাছ ধরতে সক্ষম হন। দ্বিতীয় দফায় গতকাল শনিবার পুণরায় মাছ শিকার উৎসবের আয়োজন করা হয়। টিকেটের মূল্য কমিয়ে ৮ হাজার টাকা করা হয়। মাছ ধরায় অংশ নেন ৪৫ জন শিকারী।  

নগরীর শেখঘাটের মাছ শিকারী সাত্তার আহমদ জানান, প্রথমবার প্রায় দুইমণ মাছ ধরেছিলাম। এবার ততোটা না হলেও মোটামুটি ভাল মাছই বড়শিতে ধরা পড়েছে। শিকার করা মাছের মধ্যে বেশিরভাগ ছিল রুই, কাতলা, বাউশ, সিলভার কার্প ও পাঙ্গাস। তিনি বলেন, সিলেট নগরীতে মাছ শিকারের কোন সুযোগ নেই। মাঝে মধ্যে লালাদিঘী ও শাহীঈদগাহ দিঘীতে মাছ ধরার আয়োজন করা হয়। কিন্তু এই দুই দিঘীতে খুব বেশি মাছ ধরা পড়ে না। ধোপাদিঘীতে তুলনামুলক অনেক বেশি মাছ ধরতে পেরেছেন শিকারীরা।

আয়োজক ও দিঘীর ইজারাদার হাসান আহমদ চৌধুরী বলেন, বড়শি দিয়ে মাছ শিকার আমাদের গ্রামীণ ঐতিহ্যের অংশ। সিলেট শহরে অনেক সৌখিন শিকারি রয়েছেন, কিন্তু তাদের মাছ ধরার সুযোগ নেই। মাঝে মধ্যে কেউ কেউ নদীতে মাছ ধরতে যান। কিন্তু বেশিরভাগ সময় তাদেরকে খালি হাতে ফিরতে হয়। এসব সৌখিন শিকারীদের উৎসাহে মাছ ধরা উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। বড়শি দিয়ে মাছ শিকারের ঐতিহ্য বাঁচিয়ে রাখতে আগামীতেও এরকম উৎসবের আয়োজন করা হবে। তবে টিকেটের মূল্য হয়তো আরেকটু কমানো হবে।

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার