• বুধবার   ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ১৩ ১৪২৯

  • || ০১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

৩৭

নবীজীর রওজা মোবারকের উপর জানালা কেন? 

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ২ সেপ্টেম্বর ২০২২  

প্রিয়নবি হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের রওজা পাকের ওপর নির্মিত মসজিদে নববির সবচেয়ে বড় সবুজ গম্বুজ। এটি মুসলিম উম্মাহর হৃদয়ে ঝড়তোলা একটি স্থাপনা।

এ গম্বুজটি বা গম্বুজের ছবিটি দেখলেই মুমিন-মুসলমান, আশেকে রাসুলগণ প্রিয়নবি হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের রওজা পাকের কল্পনা করেন। মসজিদে নববির এই বড় সবুজ গম্বুজটির এমন অনেক তথ্য রয়েছে, যা অনেকেরই অজানা।

হযরত ওমর বিন মালেক হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, নবীজির ইন্তেকালের পর একবার মদিনা শরীফে দীর্ঘদিন অনাবৃষ্টির কারণে অসহনীয় গরম আর দুর্ভিক্ষ দেখা দেয়। তাই মদীনাবাসীরা একদিন মুমিনদের হযরত মা আয়েশা সিদ্দীকা এর কাছে গিয়ে নিজেদের সমস্যার কথা উল্লেখ করে বৃষ্টির জন্য দোয়া কামনা করেন।

তখন হযরত মা আয়েশা বলেন, হে মদীনাবাসী তোমরা নবীজীর রওজা মোবারকের উপর যে খেজুর গাছের ডাল আছে তা সরিয়ে দাও। এবং অপেক্ষা কর। মদীনাবাসীরা তখন হযরত মা আয়েশা সিদ্দীকা এর পরামর্শ মোতাবেক কাজ করলেন।

নবীজির রওজা মোবারকের উপর থাকে ডাল সরানোর সাথে সাথে হঠাৎ আমরা দেখলাম আকাশ ধীরে ধীরে কালো মেঘে ডাকা শুরু করছে, অল্প কিছুক্ষণের মধ্যেই আকাশ থেকে এমন ভাবে ভারী বর্ষণ হতে শুরু করল যে, আমাদের পথ চলা কষ্ট দায়ক হয়ে পডলো।

দীর্ঘ এক সপ্তাহ অনবরত আকাশ থেকে বৃষ্টি বর্ষণ হতে থাকে যা কিছুক্ষণের জন্যেও বন্ধ হয়নি। যা আমাদের ফসল ফলাদির জন্য পর্যাপ্ত ছিল।

এক সপ্তাহ পর, মদীনাবাসীরা আবার মা হযরত আয়েশা সিদ্দীকা এর কাছে গিয়ে বৃষ্টি বন্ধের জন্য দোয়া চায়। তখন হযরত মা আয়েশা সিদ্দীকা বলেন, নবীজির রওজা মোবারকের উপর খেজুর গাছে ডাল পূর্বের মত দিয়ে দাও, বৃষ্টি বন্ধ হয়ে যাবে। মদীনাবাসীরা তাই করলো, সাথে সাথে বৃষ্টি বন্ধ হয়ে গেলো।

এখনো পর্যন্ত হাদীসের এই ধারাবাহীকতায় যখনি কঠিন অনাবৃষ্টি দেখা দেয়, তখন নবীজির রওজা মোবারকের উপর এই জানালা খুলে দিলে আল্লাহর হুকুমে সাথে সাথে বৃষ্টি হতে থাকে।

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার