• বৃহস্পতিবার   ২০ জানুয়ারি ২০২২ ||

  • মাঘ ৬ ১৪২৮

  • || ১৫ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

সর্বশেষ:
কুলাউড়া হাসপাতালের ৯ স্টাফ করোনায় আক্রান্ত স্বাস্থ্যকেন্দ্রের মেডিকেল অফিসার করোনা আক্রান্ত শিক্ষার্থীদের আন্দোলন নিয়ে যা বলছেন শাবির শিক্ষক-শিক্ষিকা জৈন্তাপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় যুবকের মৃত্যু পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে নতুন বছরের শুভেচ্ছা ব্লিনকেনের শাবিঃ ‘টাকার ব্যাগ’ আর ‘পিস্তল’ রেখে উপাচার্যের কুশপুত্তলিকা
৪৪

আন্দোলনের নামে পিকনিকে যাচ্ছেন বিএনপি নেতারা

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ২৪ ডিসেম্বর ২০২১  

আন্দোলন কর্মসূচির নামে দেশের বিভিন্ন জেলায় নতুন আঙ্গিকে পিকনিক করতে যাচ্ছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় থেকে শুরু করে মধ্যমসারির নেতারা। দলটির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসার দাবিতে আসন্ন কর্মসূচিতে পিকনিক করবেন তারা।

দলীয় সূত্র জানায়, এক মাস ধরে খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসার দাবিতে রাজপথে সভা করে হাঁপিয়ে ওঠা নেতাদের চাঙ্গা করতে নতুন কর্মসূচি হাতে নেয়া হয়েছে। এবার ট্রেনমার্চ ও লংমার্চ কর্মসূচির সিদ্ধান্ত আসতে যাচ্ছে। 

এ বিষয়ে বিএনপির দায়িত্বশীল একাধিক নেতা বলছেন, অচিরেই ট্রেনমার্চ ও লংমার্চ করবে বিএনপি। খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য আন্দোলন করতে জেলায় জেলায় যাওয়া-আসায় ট্রেন ব্যবহার করবেন নেতাকর্মীরা। এতে আগামীর আন্দোলনের জন্য নেতাকর্মীরা নতুন করে উদ্দীপনা পাবেন।

বিএনপির কেন্দ্রীয় দফতরের তথ্যানুযায়ী, ৩২ জেলায় সমাবেশের কর্মসূচি শেষ হবে আগামী ৩০ ডিসেম্বর। এরপর আর কোনো কর্মসূচি নেই। এখন পর্যন্ত খালেদা জিয়া যেহেতু হাসপাতালেই আছেন, সেজন্য আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার পক্ষেই নেতারা। কারণ খালেদা জিয়া সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরলে আবার কবে মাঠে নামার সুযোগ পাবে বিএনপি, তার কোনো নিশ্চয়তা নেই।

দলের দায়িত্বশীল একাধিক নেতার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, এক মাস ধরে আন্দোলন করে নেতাকর্মীরা কেন্দ্রের কাছে নিজেদের ক্লান্তি দূর করার ব্যবস্থার দাবি জানান। এরপর সিনিয়র নেতারা বিষয়টি লন্ডনে পলাতক দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে অবহিত করেন। তারেক নির্দেশ দেন, এমনভাবে কর্মসূচি হাতে নিতে যাতে আন্দোলনও থাকে আবার নেতাকর্মীরাও বিনোদিত হতে পারেন। তারেকের নির্দেশের পর মিটিংয়ে বসে বিএনপির স্থায়ী কমিটি। সেখান থেকে সিদ্ধান্ত হয়, ঢাকা থেকে জেলায় জেলায় ট্রেন মার্চ করে খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসার দাবি জানানো হবে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দলটির সিনিয়র দায়িত্বশীল এক নেতা জানান, আন্দোলনের নামে ট্রেনমার্চের মাধ্যমে নেতাকর্মীদের বিনোদনের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। ম্যাডামকে বাঁচাতে দরকার শক্ত কর্মসূচি, অথচ ওনারা পিকনিকের কর্মসূচি হাতে নিচ্ছেন। আমি এসবের সঙ্গে নেই। আমি আমার মতো করেই থাকবো।

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার