• বৃহস্পতিবার   ২১ অক্টোবর ২০২১ ||

  • কার্তিক ৬ ১৪২৮

  • || ১৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

সর্বশেষ:
সুনামগঞ্জ পৌরসভার উদ্যোগে সম্প্রীতির সমাবেশ অনুষ্ঠিত সিলেটে করোনায় শনাক্তের হার ০.৮৩ সিলেট থেকে স্পেনে গিয়েই স্বামীকে অচেতন করে স্ত্রীর চম্পট! মধ্যরাতে এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে হঠাৎ তল্লাশি জুড়ীতে ঈদে মিলাদুন্নবী (সাঃ) উদযাপিত সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি সমুন্নত রাখতে সিলেটে সৌহার্দ্য বৈঠক

কানাইঘাটে পাওনা টাকা নিয়ে সংঘর্ষ, গ্রেফতার ৫

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ১১ আগস্ট ২০২১  

সিলেটের কানাইঘাটের সীমান্তবর্তী লক্ষীপ্রসাদ ইউনিয়নের বাদশা বাজারে মঙ্গলবার (১০ অগাস্ট) রাত সাড়ে ১১টার দিকে পাওনা টাকার বিরোধ নিয়ে সংঘর্ষে অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন।

ভাঙচুর করা হয়েছে কয়েকটি দোকানের আসবাবপত্র ও মালামাল। গুরুতর আহত অবস্থায় একপক্ষের ৭ জনকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তাৎক্ষণিক এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার দায়ে কানাইঘাট থানাপুলিশ এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৫ জনকে গ্রেফতার করেছে।

গুরুতর আহত অবস্থায় বাউরভাগ ২য় খন্ড গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা বাদশা বাজারের ব্যবসায়ী নজিব আলী (৮৫) ও তার ভাই মুজম্মিল আলী (৬২), বিলাল আহমদ (৪০), শামীম আহমদ (৩৩), মোহাম্মদ আলী, হেলাল আহমদ (৫৫), জসিম উদ্দিন (৩০)-কে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এদিকে, হামলার ঘটনায় সোনাতনপুঞ্জি গ্রামের মকবুল আলীর পুত্র হারুন রশিদ ও তার ভাই মাসুক আহমদ, শফিক আহমদ, ইমরান আহমদ ও আতিক আহমদকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃত ৫জনের শরীরের বিভিন্ন জায়গায় জখমের আঘাত থাকায় তাদেরকে পুলিশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করে বুধবার আদালতে সোপর্দ করে।

এ ঘটনায় আহত মুজম্মিল আলীর পুত্র এনাম উদ্দিন বাদি হয়ে বুধবার সকালে গ্রেফতারকৃত ৫জনসহ ২৬ জনকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, ব্যবসার পাওনা টাকা নিয়ে সোনাতনপুঞ্জি গ্রামের পুলিশের হাতে গ্রেফতারকৃত হারুন রশিদ ও বাউরভাগ ২য় খন্ড গ্রামের মুজম্মিল আলীর পুত্র এনাম উদ্দিনের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। মঙ্গলবার সন্ধ্যার দিকে এ নিয়ে বাদশা বাজারে এ দু’জনের মধ্যে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলে এলাকার কয়েকজন মুরব্বী বিষয়টি সালিশে দেখে দিবেন বলে উভয় পক্ষের কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা করে আমানত নেন। এনাম উদ্দিন পক্ষের লোকজনের অভিযোগ এক পর্যায়ে রাত সাড়ে১১টার দিকে হারুন রশিদ গংরা দেশীয় ধারালো অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে বাদশা বাজারে গিয়ে তাদের উপর অতর্কিত হামলা করে ও ৫টি দোকানপার্ট ভাংচুর করে।

হামলায় তাদের ১২জনআহত হন ও ৭জনকে গুরুতর অবস্থায় ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

অপরদিকে হারুন রশিদ পক্ষের লোকজন জানান, পাওনা টাকা নিয়ে এনাম উদ্দিন হারুন রশিদকে বাদশা বাজারে মারধরের চেষ্টা করে। পরে রাত ১১টার দিকে এ ঘটনার প্রতিবাদ করতে গিয়ে সংঘর্ষ বাঁধে এবং তাদের ২টি মোটরসাইকেল প্রতিপক্ষের লোকজন নিয়ে যায়।

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার