• বৃহস্পতিবার   ১৮ আগস্ট ২০২২ ||

  • ভাদ্র ৩ ১৪২৯

  • || ১৯ মুহররম ১৪৪৪

সর্বশেষ:
বৃহস্পতিবার সুনামগঞ্জে আসছেন পরিকল্পনামন্ত্রী মান্নান আওয়ামী লীগের গর্জনে কাঁপছে সিলেটের রাজপথ বাংলাদেশ সংকটে নেই, ঋণখেলাপিতে যাওয়ার ঝুঁকি কম: আইএমএফ বিদ্যুতায়িত হয়ে মৃত্যুর ঘটনায় অভিযোগ কেন্দ্রের ইনচার্জ বরখাস্ত
৫০

আশ্রয়কেন্দ্রে নিয়মিত খাবার দিচ্ছেন আহবাবুর চেয়ারম্যান

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ২৪ জুন ২০২২  

বন্যায় বিপর্যস্ত সিলেটের বিয়ানীবাজার ইউনিয়নের তিন-চতুর্থাংশ জায়গা তলিয়ে গেছে পানির নিচে। ভিটেমাটি হারানো অনেকেই আশ্রয় নিয়েছেন আশ্রয়কেন্দ্রে। পানিবন্দি হাজার-হাজার মানুষ।

বানভাসি মানুষদের দুর্ভোগ লাঘবে ইউনিয়নের মধ্যে ৫টি আশ্রয়কেন্দ্রে ৭০টি পরিবারের প্রায় ২৫০ জনের মতো লোক রয়েছেন। যেখানে প্রতিদিনই রান্না করা খাবার বিতরণ করছেন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আহবাবুর রহমান খান শিশু। নিজে সার্বক্ষণিক তদারকি করছেন। রান্না শেষে খাবার পরিবহনে নিজে অংশ নিচ্ছেন, নিজ হাতে খাবার বিতরণ করে যাচ্ছেন। এরবাইরে যাচ্ছেন বন্যাদুর্গতদের বাড়ি-বাড়ি। নিচ্ছেন খবরাখবর।

আহবাবুর রহমান খান শিশু জানান, মাসদিনের মধ্যে দ্বিতীয় দফা বন্যায় অনেকের বসতঘরে পানি উঠে গেছে। বাধ্য হয়ে অনেকের ঠাই হয়েছে আশ্রয়কেন্দ্রে। সেখানে সকলের সম্মিলিত সহায়তায় রান্না করা খাবার বিতরণ করে যাচ্ছি। যতদিন মানুষ আশ্রয়কেন্দ্রে থাকবে ততদিন এই খাবার বিতরণ অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।

আহবাবুর রহমান বলেন, গ্রামে-গ্রামে যাচ্ছি আমি। খোঁজ নিচ্ছি বাড়ি-বাড়ি গিয়ে, যাদের ঘরে পানি ওঠে গেছে, ঘরে থাকতে পারছেন না তাদেরকে বলছি আপনারা আশ্রয়কেন্দ্রে আসুন, আমরা আপনাদের খাবারদাবারের সকল ব্যবস্থা করে দেবো। না খেয়ে ইউনিয়নের একজন মানুষকেও মরতে দেবো না, ইনশাআল্লাহ।

তিনি বলেন, এই বন্যার সময়েও সামর্থ্যবান এলাকাবাসী এবং প্রবাসীরা সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। আমার পরিবারের পক্ষ থেকে ত্রাণ সহায়তা দেওয়া হচ্ছে, সরকারি সহায়তা আছে; সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এই দুর্যোগ আমরা মোকাবেলা করব। আমি ইতোমধ্যেই উপজেলা প্রশাসনসহ সকল জায়গায় যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছি। সরকারি সহায়তা এবং ব্যক্তি ও প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ের যত সহায়তা মিলবে তার সর্বোচ্চ ও সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা হবে এই নিশ্চয়তা দিতে পারি।

আহবাবুর রহমান খান শিশু বলেন, ইউনিয়নের মানুষদের খাদেম হিসেবে আমি আমার সর্বোচ্চটুকু করে যাবো। মানুষের সেবা করার সুযোগ পাওয়া ভাগ্যের ব্যাপার। সবাই যার যার অবস্থান থেকে এগিয়ে আসুন। সবাই এগিয়ে আসলে কোন দুর্যোগই আমাদের কাবু করতে পারবে না।

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার