• মঙ্গলবার   ০৭ ডিসেম্বর ২০২১ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২৩ ১৪২৮

  • || ০১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

সর্বশেষ:
চুনারুঘাটে ইউপি সদস্যের মৃত্যুতে বিমান প্রতিমন্ত্রীর শোক আদালত কর্তৃক সিলেট প্রেসক্লাবের ভোটার তালিকা ও নির্বাচন স্থগিত শাবিতে ১২তম জাতীয় গণিত অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত ৮০ কোটি টাকা ব্যয়ে সিলেটে বসছে ‘এক্সেল লোড কন্ট্রোলার’ সিলেটের দক্ষিণ সুরমায় উন্নয়ন প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন মুজিববর্ষ উপলক্ষে সিসিকের মশক নিধন ও পরিচ্ছন্নতা অভিযান হবিগঞ্জ ও শায়েস্তাগঞ্জে ৫ হাজার কৃষক পেলেন সরকারি প্রণোদনা

জকিগঞ্জে বিদ্যুৎ বিভ্রাট চরমে, বাড়ছে ক্ষোভ

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ২১ অক্টোবর ২০২১  

হঠাৎ করেই জকিগঞ্জে বেড়েছে অসহনীয় লোডশেডিং। ঘনঘন লোডশেডিংয়ে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন সীমান্তবর্তী উপজেলার লোকজন। কোন ঘোষণা ছাড়াই বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকে ঘন্টার পর ঘন্টা। বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের এমন হয়রানি দেখার মত জকিগঞ্জে যেন কেউ নেই! এমনটাই সাধারণ মানুষের বক্তব্য। পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির লুকোচুরিতে সাধারণ মানুষ দোষারোপ করছে সরকারকে। বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়েছেন সরকার দলীয় রাজনৈতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। সাধারণ মানুষের কাছে সরকারের উন্নয়নের ফিরিস্তি তুলে ধরতে গেলেই বিদ্যুৎ হয়রানির প্রশ্নে নিরব থাকেন নেতাকর্মীরা।

সাধারণ মানুষের সাথে কথা বলে জানা গেছে, গত কয়েকদিন থেকে লোডশেডিং মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। কোন পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ লাইন বন্ধ রাখে। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। বিপাকে পড়েছেন আসন্ন এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীসহ সাধারণ শিক্ষার্থীরা। ছোট-বড় ব্যবসায়ীদের মাথায় হাত। বিদ্যুতের কারণে অনেক এলাকার মসজিদে আজান বন্ধ থাকে। মোটর চলে না, তাই পানির অভাবে মুসল্লিদের নামাজ আদায়ে বিঘ্ন ঘটছে। ডিজিটাল প্রক্রিয়ায় ব্যাংক, বীমাসহ সরকারি একাধিক অফিসের কার্যক্রম ইন্টারনেট নির্ভর হলেও বিদ্যুৎ বিভ্রাটের কারণে তা বিঘ্নিত হচ্ছে। প্রতিদিন ইউনিয়ন পরিষদ ও পৌরসভায় জন্ম-মৃত্যুর নিবন্ধনকারীরা সনদ সংগ্রহ করতে গিয়েও বিদ্যুৎ বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছেন। বিদ্যুৎ চলে গেলে মোবাইলে থাকে না নেটওয়ার্ক। জেলা শহর থেকে সবচেয়ে দূরবর্তী উপজেলা জকিগঞ্জে গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা দুর্ঘটনা ঘটলেও বিদ্যুতের কারণে সময় মতো গণমাধ্যমে পাঠানো সম্ভব হয়না। এতে গুরুত্বপূর্ণ ঘটনাও প্রকাশ হয় না পত্রিকার পাতায়।

জানা গেছে, বুধবার বিকেল থেকে জকিগঞ্জে হালকা হালকা বৃষ্টির প্রভাব শুরুর পর থেকেই বিদ্যুৎ উধাও হয়ে গেছে। মাঝে মধ্যে ১/২ মিনিটের জন্য বিদ্যুৎ আসলেও আবার চলে যায়। সন্ধ্যা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত বিদ্যুৎহীন ছিল পুরো উপজেলা। ঘন ঘন লোডশেডিংয়ের বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছেন সাধারণ মানুষ।

স্কুলছাত্রী সোনিয়া সুলতানা ক্ষোভ প্রকাশ করে জানায়, ‘জকিগঞ্জকে দেখার যেন কেউ নেই। অভিভাবক না থাকলে যেমনটা হয় তেমনটাই এখন হচ্ছে। ভোট আসলে সরকার দলের নেতাকর্মী উন্নয়নের ফিরিস্তি তুলে ধরেন। কিন্তু বিদ্যুৎ লোডশেডিং সমস্যা নিয়ে কেউ কোন কথা বলেন না। সকল ক্ষেত্রেই পিছিয়ে রয়েছে সীমান্তের লোকজন। এমন পরিস্থিতির দায়ভার কে নেবেন? বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের হয়রানি বন্ধ করতে কেউ কী ভূমিকা রাখবেন না? আর কতদিন এভাবে দুর্ভোগ পোহাতে হবে?’

ব্যবসায়ী শফিকুর রহমান ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘বিদ্যুৎ সমিতির হয়রানির বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ অব্যাহত থাকলেও বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ জনগনের প্রতিবাদে কোনো সাড়া দিচ্ছে না। রাতের বেলায় উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থাকে অন্ধকারে। ফ্রিজের মাছ মাংস পঁচে যায়। উপজেলায় চুরি-ডাকাতির ঘটনা বৃদ্ধি পাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। কোনো ঘোষণা ছাড়াই ভয়াবহ বিদ্যুৎ বিভ্রাটের ঘটনা সরকারের প্রতি জনগণের অনাস্থা তৈরির পাঁয়তারা ও ষড়যন্ত্রের শামিল। সীমান্ত অঞ্চল জকিগঞ্জে বিদ্যুৎ নিরবচ্ছিন্ন না হলেও মাস শেষে ভুতুড়ে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করতে হয়। বিদ্যুৎ বিল নিয়েও অনিয়মের শেষ নেই। বিদ্যুৎ হয়রানি থেকে মুক্তি চায় সীমান্তবর্তী উপজেলার লোকজন।’

জকিগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক ফারুক আহমদ বলেন, বিদ্যুৎ হয়রানির ঘটনা সরকারের প্রতি মানুষের বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করার ষড়যন্ত্র হতে পারে। জনগণকে সরকারের বিরুদ্ধে উস্কে দেবার পাঁয়তারা করছে অসাধু কর্মকর্তারা। লোডশেডিং এর কারণে সরকারের সুনাম নষ্ট হচ্ছে। তিনি বলেন, শেখ হাসিনার সরকার লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি বিদ্যুৎ উৎপাদন করেছে। কিন্তু জকিগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের কর্মকর্তাদের অবহেলার কারণে লোডশেডিংয়ে লক্ষ লক্ষ মানুষ কষ্ট করছে। সরকারের ঊর্ধ্বতন মহল জকিগঞ্জের বিদ্যুৎ সমস্যার বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নিতে তিনি দাবী জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে জকিগঞ্জ পল্লী বিদ্যুতের ডিজিএম আবুল কালাম জানান, লাইনে সমস্যা থাকার কারণে বিদ্যুৎ বন্ধ রাখা হয়েছে।

কেন বার এই সমস্যা হয়, এমন প্রশ্ন রাখার পর তিনি লাইন কেটে দেন।

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার