• শনিবার   ০৪ ডিসেম্বর ২০২১ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২০ ১৪২৮

  • || ২৭ রবিউস সানি ১৪৪৩

সর্বশেষ:
তাহিরপুরে শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নে নৌকার একক প্রার্থী সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীদের হুশিয়ারি! নিখোঁজের দু’দিন পর রোমানার লাশ মিললো নদীতে শেষ ওভারের রুদ্ধশ্বাস লড়াইয়ে হোয়াইটওয়াশ বাংলাদেশ পরীক্ষার্থীদের হলে পৌঁছে দিচ্ছে সিলেট জেলা ছাত্রলীগ

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি সমুন্নত রাখতে সিলেটে সৌহার্দ্য বৈঠক

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ২০ অক্টোবর ২০২১  

কুমিল্লার ঘটনাকে কেন্দ্র করে সারাদেশে সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনা ঘটেছে। এসব হামলার প্রতিবাদে সরব হয়েছেন বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ। তবে নিজেদের সম্প্রীতি বজায় রাখতে সিলেটে এবার নেওয়া হয়েছে ভিন্ন উদ্যোগ। সিলেট নগরের ১৮ নম্বর ওয়ার্ডে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি সমুন্নত রাখতে ধর্মীয় নেতাদের সঙ্গে সৌহার্দ্য বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ বুধবার (২০ অক্টোবর) স্থানীয় কাউন্সিলর এবিএম জিল্লুর রহমান উজ্জ্বলের উদ্যোগে আয়োজিত এই সভায় ওয়ার্ডে বসবাসরত বিভিন্ন ধর্মীয়, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সিলেট সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র এবিএম জিল্লুর রহমান উজ্জ্বলের সভাপতিত্বে বৈঠকে বক্তব্য দেন সিলেট প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ইকরামুল কবির, রামকৃষ্ণ মিশন সিলেটের সম্পাদক স্বামী চন্দ্রনাথানন্দ, সিলেট মহানগর পুলিশের কোতোয়ালি থানার উপ-পরিদর্শক মো. আব্দুল মান্নান, মৌসুমী ক্রীড়া ও সমাজকল্যাণ সংস্থার সভাপতি মুহিউল ইসলাম মনসুর, সেবক সংঘের সভাপতি মাছুম আহমদ, বসুন্ধরা সমাজকল্যাণ সংস্থার সভাপতি মইনুল ইসলাম নাদিম, আতিকুর রহমান, বাংলাদেশ জামায়াত ইসলাম ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের সভাপতি আব্দুল মোতালেব, বলরাম জিউর আখড়া সাধারণ সম্পাদক শ্যামল চন্দ্র দে, পূর্ব ঝরনার পার জামে মসজিদের ইমাম এখলাছুর রহমান, ইব্রাহিম খলিলুল্লাহ জামে মসজিদের ইমাম মো. জাকারিয়া জাবের, ১৮ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মো. রফিকুল হোসেন, আগপাড়া জামে মসজিদের সহকারী ইমাম মো. হুসাইন আহমদ, ওয়ার্ড পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শিমুল চক্রবর্তী,ঝেরঝেরীপাড়া আহ্বায়ক কমিটির সদস্য তারেক আহমদ খান, ঝরনার পার জামে মসজিদের মোয়াজ্জিন মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন, সবুজ সংঘ সোনাতুলা সিলেটের সভাপতি দেবাশীষ চক্রবর্তী, প্রজন্ম সংঘ ক্লাবের সভাপতি মো. ইসরাত ইসমাইল, ঝরনার পারের ফারুক আহমদ, মোয়াজ্জিন মো. শফিকুল ইসলাম, মৌসুমী ক্রীড়া ও সমাজকল্যাণ সংস্থার সহ-সভাপতি এএম মিজানুর রহমান, সময় টিভির চিত্র সাংবাদিক দিগেন সিংহ ও ঝেরঝেরিপাড়ার মকছুদ আহমদ।

সিলেট প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ইকরামুল কবির বলেন, বিশ্বের কোনো ধর্মের কোথাও লেখা নেই যে অন্য ধর্মকে নীপিড়ন করো। বরং পারস্পরিক সম্প্রীতির কথা বলা হয়েছে। এই ওয়ার্ডে যেভাবে বিভিন্ন ধর্মাবলম্বী ও শ্রেণিপেশার মানুষদের নিয়ে সৌহার্দে্যর বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে তা অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। যদি নগরের সবগুলো ওয়ার্ডে এ ধরণের বৈঠক আয়োজন করা সম্ভব হত, তাহলে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির শহর যে সিলেট তা আরও একবার প্রমাণিত হত।

বৈঠকে সামাজিক-সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ বলেন, যেকোনো ধর্মের উৎসব পালনের ক্ষেত্রে যদি কোনো শঙ্কা থাকে তাহলে সে নিরাপত্তা আমরা সবাই মিলে দিতে হবে। বর্তমানে দেশব্যাপী যে অবস্থা বিরাজ করছে তা নিরসনে ধর্মীয় নেতৃবৃন্দকে এগিয়ে আসতে হবে। বিশেষ করে শুক্রবার জুমার নামাজের পূর্বে বক্তৃতায় এ নিয়ে আলোচনা করা যেতে পারে। অন্যান্য ধর্মের উপাসনার সময়ও এনিয়ে আলোচনা করা যেতে পারে। আমরা সবাই দেশের নাগরিক, তাই সবাই মিলে বাস করতে চাই। 

বৈঠকে কাউন্সিলর জিল্লুর রহমান উজ্জ্বল বলেন, আমরা মানুষরা সৃষ্টির সেরা জীব। মানুষের নিজস্ব বিবেক-বুদ্ধি আছে, আছে চিন্তা করার সামর্থ্য। সম্প্রতি ধর্মের নাম ভাঙিয়ে যেসব ঘটনা ঘটছে, তা দেখে আমি ব্যথিত। যারা এর সঙ্গে জড়িত ছিল, তারাও তো মানুষ। তাদের বিবেকে একবারও নাড়া দেয় না। তাদের অবিবেচক কাণ্ডে আমাদের মধ্যে যে ধর্মীয় সম্প্রীতি আছে, তাতে দুষ্কৃতিকারিরা ফাটল ধরানোর চেষ্টা করছে। কিন্তু এধরনের ফাঁদে পা না দেওয়ার অনুরোধ সবার প্রতি। এই দেশ, এই নগর, এই ওয়ার্ড আমোদের সবার। এখানে আমরা সব ধর্মের মানুষ মিলেমিশে বসবাস করব।

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার