• শনিবার   ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||

  • আশ্বিন ৩ ১৪২৮

  • || ০৯ সফর ১৪৪৩

সর্বশেষ:
দোয়ারাবাজারে বিভিন্ন কর্মসূচি পরিদর্শনে অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার অবশেষে শুরু হচ্ছে সিলেটের সেই দুই সড়কের সংস্কারকাজ করোনা: ফের মৃত্যুর মিছিলে সিলেটে সিলেট জেলা ছাত্রলীগের প্রথম সভাপতি ফয়জুল আর নেই

বিধিনিষেধের ভয়ে করোনার টিকা নিচ্ছেন পাকিস্তানিরা

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ৫ আগস্ট ২০২১  

করোনার টিকা নিতে পাকিস্তানের টিকাদানকেন্দ্রগুলোয় প্রতিদিন অসংখ্য মানুষ ভিড় করছেন। এর পেছনে ভূমিকা রেখেছে দেশটির সরকারের একটি ঘোষণা। পাকিস্তান সরকার জানিয়ে দিয়েছে, করোনার টিকা না নিলে সেলফোনের সিম ব্লক করে দেওয়া হবে। এমনকি টিকা না নেওয়া ব্যক্তি সরকারি দপ্তর, রেস্তোরাঁ, বিপণিবিতানে ঢুকতে পারবেন না। ভ্রমণ করতে পারবেন না। এসব ‘সাজার’ ভয়ে পাকিস্তানিরা করোনার টিকা নিতে কেন্দ্রগুলোয় ভিড় করছেন।

চলতি সপ্তাহের শুরু থেকেই পাকিস্তানের বিভিন্ন জায়গায় টিকাকেন্দ্রের সামনে লম্বা লাইন দেখা গেছে। অনেক জায়গায় এসব লাইন এক কিলোমিটার ছাড়িয়েছে। চাপ বেড়েছে দেশটির সীমিত সক্ষমতার স্বাস্থ্যসেবা খাতের ওপর। সাধারণ মানুষের মধ্যে টিকা নিতে এই আগ্রহ যতটা না করোনার অতিসংক্রামক ডেলটা ধরনের ভয়ে, তার চেয়েও বেশি টিকা না নেওয়ার কারণে সরকার ঘোষিত বিভিন্ন বিধিনিষেধের জন্য।

করাচির দক্ষিণাঞ্চলের একটি কেন্দ্রে করোনার টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিতে এসেছিলেন আবদুল রউফ। পেশায় ব্যাংকার রউফ বলেন, ‘ব্যক্তিগতভাবে আমি করোনা নিয়ে ভীত নই। কিন্তু টিকা না নিলে আমার বেতন বন্ধ হয়ে যাবে। সিম ব্লক করে দেওয়া হবে। 

আমি এসব সাজা পেতে চাই না। তাই করোনার টিকার দুটো ডোজ নিয়েছি।’

পাকিস্তানের টিকাদান কার্যক্রমের ইতিহাস খুব একটা সুখের নয়। এই অঞ্চলের মধ্যে পাকিস্তান ও আফগানিস্তানে এখনো পোলিও রয়ে গেছে। এর অন্যতম কারণ, স্থানীয়রা পোলিও টিকা নিতে আগ্রহী নন। এমনকি এই অঞ্চলে টিকাবিরোধী নানা কার্যক্রম চলে। টিকাদানকর্মীদের ওপর হামলার ঘটনাও ঘটেছে।

সেনাবাহিনী পরিচালিত ন্যাশনাল কমান্ড অ্যান্ড অপারেশন সেন্টার (এনসিওসি) জানিয়েছে, পাকিস্তানের ২২ কোটি মানুষের মধ্যে এখন পর্যন্ত মাত্র ৬৭ লাখ করোনার টিকা নিয়েছেন। গত মাসের শেষের দিকে পাকিস্তান সরকার ঘোষণা দিয়েছে, করোনার টিকার সনদ না থাকলে সরকারি দপ্তর, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, রেস্তোরাঁ, বিপণিবিতানের কর্মীরা কাজে যুক্ত হতে পারবেন না। ভ্রমণের ক্ষেত্রেও টিকার সনদ থাকা বাধ্যতামূলক।

এই ঘোষণার পর দেশটিতে টিকা নেওয়ার হার লাফিয়ে বাড়ছে। গত সপ্তাহে এক দিনে পাকিস্তানে ১০ লাখ মানুষ করোনার টিকা নিয়েছেন।

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার