• মঙ্গলবার   ২৫ জানুয়ারি ২০২২ ||

  • মাঘ ১২ ১৪২৮

  • || ২০ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

সর্বশেষ:
শাবির প্রথম বর্ষের ভর্তি কার্যক্রম স্থগিত জৈন্তাপুরে ছেলের হাতে মা খুন! বিশ্ব দরবারে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করেছে পুলিশ : প্রধানমন্ত্রী শাবিতে ভিসি’র বাসবভনের সামনে খাটে শুয়ে অনশনের প্রস্তুতি শাবিতে আন্দোলন : ১৬ জন হাসপাতালে জেলা ভোগ্যপণ্য পরিবেশক গ্রুপের সাধারণ সভা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রচেষ্টায় সিলেটে হচ্ছে ‘ওয়াসা’
১২১

ইউক্রেনে আক্রমণের পরিকল্পনা করছে রাশিয়া : যুক্তরাষ্ট্র 

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ২ ডিসেম্বর ২০২১  

পূর্ব ইউরোপের দেশ ইউক্রেন ইস্যুতে পরাশক্তি রাশিয়া ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের চলমান সংঘাত তুঙ্গে পৌঁছেছে। ওয়াশিংটন মনে করছে, মস্কো যে কোনো কিয়েভে আক্রমণ চালাতে পারে। তাই সামরিক জোট ন্যাটোর সদস্য রাষ্ট্রগুলোকে সঙ্গে নিয়ে রুশ আগ্রাসন মোকাবিলায় তৈরি হচ্ছে ওয়াশিংটন। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন জানিয়েছেন, ইউক্রেনে আক্রমণ চালান হলে রাশিয়ার বিরুদ্ধে পাল্টা ব্যবস্থা নেবে যুক্তরাষ্ট্র।

ব্রিটিশ মিডিয়া বিবিসি নিউজ জানায়, বুধবার (১ ডিসেম্বর) লাটভিয়ার রিগাতে ন্যাটোর সদস্য রাষ্ট্রগুলোর সঙ্গে মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক শেষে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন। সেখানে তিনি জানিয়েছেন, ইউক্রেনে হামলা করার পরিকল্পনা নিয়েছে রাশিয়া। বিদ্যমান এই পরিস্থিতি দেখে যুক্তরাষ্ট্র ভীষণ উদ্বিগ্ন।

ইউক্রেনের অভিযোগ, সীমান্তে বহু সামরিক যানবাহন, সেনাবাহিনী এবং ইলেকট্রনিক ওয়ারফেয়ার সিস্টেম মজুত করেছে রাশিয়া। চলতি বছরে এ নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো রাশিয়া এভাবে সৈন্য ও সমরাস্ত্র মোতায়েন করল।

অ্যান্টনি ব্লিংকেন সাংবাদিকদের বলেছেন, রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ইউক্রেনে আক্রমণ করার সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন কি-না তা যুক্তরাষ্ট্র জানে না। আমরা জানি, মস্কো যেভাবে সীমান্তে নিজেদের সৈন্য ও অস্ত্র মোতায়েন করেছে, তাতে ইউক্রেনে হামলার সিদ্ধান্ত নিলে খুব কম সময়ের মধ্যে তা কার্যকর করা যাবে।

বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) সুইডেনে নিরাপত্তা ও সহযোগিতা বিষয়ক সম্মেলন হবে। সেখানে ব্লিংকেনের সঙ্গে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে। গুরুত্বপূর্ণ সেই আলোচনায় ইউক্রেনের প্রসঙ্গ উঠবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এ দিকে রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বুধবার জানিয়েছেন, রাশিয়ায় যে সব মার্কিন কূটনীতিক তিন বছরের বেশি সময় যাবত আছেন, তাদের বহিষ্কার করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র সম্প্রতি ২৭ জন রুশ কূটনীতিকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে। এই পদক্ষেপের মাধ্যমে তারই জবাব দিল রাশিয়া।

চলতি বছরের শুরুর দিকে রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার চেষ্টা হচ্ছিল। তবে মস্কো ইউক্রেন সীমান্তে সৈন্য মোতায়েন করার পরপরই দুই দেশের সম্পর্ক আবার খারাপ হয়। চলতি সপ্তাহের শুরুতে প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছিলেন, ন্যাটো যদি ইউক্রেনে অবকাঠামো বৃদ্ধি করে, তাহলে তারা সীমা লঙ্ঘন করবে।

তিনি বলেছিলেন, যুক্তরাষ্ট্র ও তাদের বন্ধুদের সঙ্গে আলোচনার সময় তাদের স্পষ্ট করে বলা হবে। রাশিয়ার সীমান্তের কাছে তারা যেন সেনা বা অস্ত্র মোতায়েন না করে। অপর দিকে পুতিনের এমন বক্তব্যের পর বুধবার ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট বলেছেন, উত্তেজনা কমাতে তিনি রাশিয়ার সঙ্গে আলোচনা করতে চান।

উল্লেখ্য, বৈরী এই দুই দেশের সম্পর্ক গত কয়েক দশকের মধ্যে বর্তমানে সবচেয়ে তলানিতে পৌঁছেছে। গত মার্চে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন রুশ প্রেসিডেন্টকে খুনি বলেও মন্তব্য করেছিলেন। মার্কিন নির্বাচনে হস্তক্ষেপ, সাইবার হামলা, ইউক্রেনের কাছ থেকে ক্রিমিয়া দখল নিয়ে দুই দেশের সম্পর্কে নজিরবিহীন অবনতির মাঝে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেনের সর্বশেষ বক্তব্য সামনে এলো।

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার