• সোমবার   ২৭ জুন ২০২২ ||

  • আষাঢ় ১৩ ১৪২৯

  • || ২৬ জ্বিলকদ ১৪৪৩

সর্বশেষ:
মঙ্গলবার সিলেটের যেসব এলাকায় বিদ্যুৎ থাকবে না ওসমানীনগরে ২শ মিটার অবৈধ কারেন্ট জাল পুড়িয়ে বিনষ্ট "প্রধানমন্ত্রীর দক্ষ ব্যবস্থাপনায় কেউ না খেয়ে মারা যায়নি" বন্যায় সিলেটে ১২ কোটি টাকার প্রাণিসম্পদের ক্ষতি প্রাকৃতিক দুর্যোগে সিলেটে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫২ হবিগঞ্জে নদীর পানি কমেছে, উন্নতি নেই হাওরাঞ্চলে হেলিকপ্টারে করে সিলেটের বন্যা পর্যবেক্ষণ করলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী
২৫

ব্যথায় গরম পানির সেঁক দেওয়া কি ঠিক?

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ২৯ মে ২০২২  

ব্যথা পেলে আমরা উপশপ পেতে নানান উপায় খুঁজি। অনেকে নেন ঠাণ্ডা পানি কিংবা বরফের প্রলেপ। আর কেউ কেউ গরম পানির সেঁক নিয়ে থাকি। 

ব্যথায় গরম পানির সেঁক নেওয়া ঠিক না সে বিষয়ে বিস্তারিত জানিয়েছেন ভিশন ফিজিওথেরাপি সেন্টারের কনসালট্যান্ট ফিজিওথেরাপিস্ট ডা. সাইফুল ইসলাম।   
  
ব্যথা পেলেই আমরা গরম পানির সেঁক বা হট প্যাক দেই। এটা অনেক বড় একটা ভুল। আঘাতজনিত ব্যথায় প্রথম দিকে গরম সেঁক দিলে ব্যথা এবং ফোলা দুটোই বেড়ে যাবে। 

কারণ গরম দিলে রক্তনালিগুলো প্রসারিত হয়ে আরও বেশি রক্ত এসে আঘাতপ্রাপ্ত অংশটি অনেক বেশি ফুলে যায়, ফলে ইনফ্লামেশন আরও বেড়ে যায়। অর্থাৎ নিজের সর্বনাশ নিজেই করলেন। 

ব্যথা পেলে কী করবেন

ব্যথা পাওয়ার সঙ্গে বরফ দেওয়া উচিত।  বরফকে অবশ্যই কাপড় দিয়ে মুড়িয়ে দিতে হবে। অথবা আইস জেল প্যাক ব্যবহার করতে হবে। ২০-৩০ মিনিট বরফ দিতে পারেন। প্রতিদিন ৪ বার করে, প্রথম ৩ দিন। 

পরে অবস্থা বুঝে গরম পানির সেঁক দিতে পারেন, যদি ফোলা না থাকে। জয়েন্ট বা টিস্যু ফোলা থাকলে অবশ্যই বরফ দেবেন। 

গরম দিলে ফোলা আরও বেড়ে যেতে পারে। এ ছাড়া আর্থ্রাইটিসজনিত হাঁটু ব্যথায় অনেকে হাঁটুতে গরম পানির সেঁক দেন, এমন কী হাঁটু ফোলা থাকলেও। 

এতে সাময়িক আরাম পেলেও ফোলা এবং ব্যথা উভয় বেড়ে যায়। তাই হাঁটু ফোলা এবং ব্যথাজনিত সমস্যায় বরফ দেবেন। 

আঘাতজনিত সমস্যার ক্ষেত্রে তীব্র ব্যথা এবং ফোলা বেশি থাকলে চিকিৎসকের কাছে দ্রুত যাওয়া উচিত। কারণ হাড় ভেঙে যাওয়ার সমস্যাও হতে পারে।

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার