• রোববার   ২৭ নভেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৩ ১৪২৯

  • || ০২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

সর্বশেষ:
সিলেটে নাশকতার মামলায় কারাগারে বিএনপি নেতা সেলিম ১৫টি পাখিসহ মৌলভীবাজারে ২ শিকারি আটক সুনামগঞ্জে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল কলেজ শিক্ষকের বিয়ানীবাজার থেকে আরও ৮ মি. ঘনফুট গ্যাস যুক্ত হচ্ছে জাতীয় গ্রিডে জঙ্গি ছিনতাইয়ের মামলায় আসামি ঈদীর আত্মসমর্পণ সচিবদের ১১ নির্দেশনা প্রধানমন্ত্রীর
৮২

গুণগত শিক্ষায় আপসহীন থাকবে সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটি

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২  

সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির (এসইউ) ফল-২০২২ সেশনে ভর্তি হওয়া সকল বিভাগের নতুন শিক্ষার্থীদের অভ্যর্থনা ও নবীনবরণ অনুষ্ঠান শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) বিকেল তিনটায় ঢাকার ফার্মগেটের কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশের (কেআইবি) মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে বক্তারা সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটিতে গুণগত শিক্ষা নিশ্চিতকরণে আপসহীন থাকার কথাই ব্যক্ত করেছেন।

সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ও নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম বাবু এম.পি-এর সভাপতিত্বে অভ্যর্থনা ও নবীন বরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের সদস্য প্রফেসর ড. বিশ্বজিৎ চন্দ।

অনুষ্ঠানে বিশিষ্ট অতিথি হিসেবে সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির প্রতিষ্ঠাতা ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল আজিজ এবং প্যাট্রন হিসেবে সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মো: আবুল বাশার নবীন শিক্ষার্থীদের স্বাগত জানানো ও বরণ করে নেওয়ার পাশাপাশি তাদের উদ্দেশ্যে অনুপ্রেরণামূলক বক্তব্য দেন।

রেজিস্ট্রার এস. এম. নূরুল হুদা বলেন , সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটি কর্তৃপক্ষ বিশ্বাস করেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কোয়ালিটি এডুকেশন প্রোভাইড করার পূর্বশর্ত হচ্ছে কোয়ালিটি সম্পন্ন শিক্ষক নিয়োগ করা। সে আলোকে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের প্রণীত শিক্ষক নিয়োগ নীতিমালা অনুযায়ী অত্র ইউনিভার্সিটির শিক্ষক নিয়োগ কমিটির মাধ্যমে ভালো রেজাল্ট করা যোগ্য প্রার্থীকে নির্বাচনের মাধ্যমে শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ করে থাকেন। ফলশ্রুতিতে শিক্ষার্থীরা পাচ্ছে ভালো শিক্ষক এবং শিক্ষার গুণগত মান।

তিনি তার বক্তব্যে শিক্ষার্থীদের জন্য বিনামূল্যে ট্রান্সপোর্ট সুবিধাসহ অন্যান্য সুযোগ-সুবিধার কথা তুলে ধরেন।

নতুন শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকে আরিফা বিনতে হোসেন বলেন, যাতায়াত সুবিধা ছাড়াও অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের তুলনায় বেশ কম খরচে এখানে গুণগত মানের শিক্ষা নিশ্চিত করা হয় জেনেই আমি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েছি। এখানে আমি নতুন হিসেবে আমার শিক্ষক-শিক্ষিকাদের বন্ধুসুলভ আচরণ আমাকে উদ্বুদ্ধ করেছে।

ব্যবসায় অনুষদের ডিন প্রফেসর আবুল কালাম তার অনুপ্রেরণামূলক বক্তব্যে তিনি শিক্ষার্থীদের ১ম সেমিস্টার থেকেই লেখাপড়ার ওপর গুরুত্বারোপ করতে বলেন। লেখাপড়ার পাশাপাশি তিনি সহশিক্ষা কার্যক্রমে অংশ নিতে শিক্ষার্থীদের উদ্বুদ্ধ করেন। বিভিন্নখাতে বিশ্ববিদ্যালয়টির সফলতা তুলে ধরে তিনি বলেন, যারা সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির বিজনেজ ফ্যাকাল্টিকে তাদের ক্যারিয়ারের জন্যে এবং ছাত্র হিসেবে চয়েজ করেছেন, আপনারা মনে হয় কোনো ভুল করেননি।

বিজ্ঞান ও প্রকৌশল অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মো: আলমগীর হোসেন, বাংলাদেশে অনেকগুলো ইউনিভার্সিটি আছে। কিন্তু তার মধ্য থেকে তারা সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটিকে বেছে নিয়েছে। এজন্য আমরা সকল শিক্ষার্থীদের আমাদের আন্তরিক শুভেচ্ছা এবং তাদেরকে আমরা সাদর অভ্যর্থনা জানাচ্ছি। তিনি শিক্ষার্থীদের মানবতার উন্নয়নে ভূমিকা রাখার জন্য উৎসাহিত করেন।

এসইউ’র প্রো ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর শামীম আরা হাসান বলেন, আমাদের স্বপ্ন হচ্ছে নবীনদের নিয়ে। নবীনদের পথচলায় আমরা সাথে থাকবো।

সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির সাথে তার পুরনো সম্পর্কের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ২০১৪ সাল থেকে আমি সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির সাথে আছি। এই ইউনিভার্সিটির স্থাপত্য বিভাগ গড়ে তোলার জন্য আমাকে নিয়ে আসা হয়েছিল। এই সময়ে সোনারগাঁও বিশ্ববিদ্যালয় অসংখ্য জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক পুরস্কার জিতেছে এবং ভবিষ্যতেও জিতবে।

তিনি অক্সফোর্ড, হার্ভার্ড, ক্যামব্রিজের মতো উন্নত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে সোনারগাঁও বিশ্ববিদ্যালয়কে গড়ে তোলার স্বপ্ন দেখেন বলে তার বক্তব্যে উল্লেখ করেন।

সোনারগাঁও বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নতির জন্য শিক্ষকদের ভূমিকার কথা স্বীকার করে বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রতিষ্ঠাতা ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল আজিজ বলেন, আজ সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির হাজার হাজার ছাত্র-ছাত্রীরা দেশের খ্যাতনামা প্রতিষ্ঠানগুলোতে ভালো অবস্থানে কর্মরত আছে। আমি মনে করি, এর পেছনে বড় ভূমিকা শিক্ষক-শিক্ষিকাদের। তারাই মূলত আন্তরিকতার সাথে আমাদের ছেলে-মেয়েদের সুশিক্ষিত করে গড়ে তুলতে কাজ করে যাচ্ছেন।

সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির এ প্রতিষ্ঠাতা তার বক্তব্যে নজরুল ইসলাম বাবু, এমপি এর প্রতি তার কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে তিনি জানান, নজরুল ইসলাম বাবু এই বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন স্বপ্নদ্রষ্টা। তিনি শুরু থেকেই এ বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নতির জন্য অক্লান্ত শ্রম ও মেধা দিয়ে আমাদের দিক নির্দেশনা দিচ্ছেন। তারই দিক নির্দেশনায় সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটি ক্রমশ উন্নতির শিখরে আহরণ করছে।

নবীন শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনাদের মা-বাবা, অভিভাবকরা যে স্বপ্ন নিয়ে আপনাদের এখানে পাঠিয়েছেন, সে স্বপ্নপূরণের দায়িত্ব শিক্ষকদের পাশাপাশি আপনাদেরও। মা- বাবা যেন কখনও হতাশ না হোন, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির এ প্রতিষ্ঠাতা বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের সদস্য বিশ্বজিৎ চন্দ্রের কাছে দাবি জানান, সোনারগাঁও বিশ্ববিদ্যালয়ে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ চালুর ব্যপারে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালক মো: ওমর ফারুখ শিক্ষকদের প্রতি অনুরোধ করে বলেন , পিতা-মাতারা যে স্বপ্ন নিয়ে আপনাদের কাছে পাঠিয়েছে, তা যেন ওরা পূরণ করতে পারে সে চেষ্টা করবেন।

অনুষ্ঠানের প্যাট্রোন এবং সোনারগাঁও বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মো: আবুল বাশার নবীন শিক্ষার্থীদের প্রতি নির্দেশনামূলক বক্তব্যে ভিসি বলেন, সকল বিভাগের শিক্ষকগণ তোমাদের কাছে থেকে সম্মান পাওয়ার যোগ্য। তাই সবাইকে সম্মান করতে হবে। শিক্ষকবৃন্দ তাদের মেধা দিয়ে দেশের চাহিদা অনুসারে ছাত্র-ছাত্রীদের গড়ে তুলতে অক্লান্ত পরিশ্রম করে থাকেন। শিক্ষকদের এই আন্তরিক প্রচেষ্টা বিশ্বের সকল প্রতিযোগিতামূলক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ করতে সাহায্য করবে।

তিনি মনে করেন, কোনো বিষয়ে দক্ষতা আর সনদ অর্জন এক জিনিস নয়। তিনি দক্ষতা অর্জনের জন্য ক্লাসের বাইরেও শিক্ষকদের সাহয্য নিতে শিক্ষার্থীদের উৎসাহিত করেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে অধ্যাপক ড. বিশ্বজিৎ চন্দ বলেন, প্রাইভেট ইউনিভার্সিটিতে পড়লে এখন আর হীনমন্যতায় ভুগতে হয় না। বিশ্ব র‍্যাংকিং-এ এখন প্রাইভেট ইউনিভার্সিটিগুলোই এগিয়ে।

তিনি তার বক্তব্যে শিক্ষার্থীদের মদিনা সনদের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে বলেন, মানুষের মতো মানুষ হতে হবে। অসাম্প্রদায়িক দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন-ইউজিসি সদস্য তার বক্তব্যে জ্ঞানের মাধ্যমে নিজেকে বিকশিত করার নির্দেশনা দেন শিক্ষার্থীদের। অপরদিকে নিজের অভিজ্ঞতা, অনুভূতি বিনিময়ের পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের সফল ভবিষ্যৎ গঠনে আলোকপাত করেন এই ইউজিসি সদস্য। আশ্বাস দেন সোনারগাঁও বিশ্ববিদ্যালয়ে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ চালুকরণে সহায়তার।

সভাপতির বক্তব্যে নারায়ণগঞ্জ ২ আসনের সংসদ সদস্য এবং সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির ট্রাস্ট্রি বোর্ডের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম বাবু বলেন, বঙ্গবন্ধু আমাদের জন্য সবকিছু রেখেন গেছেন বলেই আমরা আজ জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু বলে তৃপ্তি পাই। যিনি আমাদের দেশ দিয়ে গেছেন, তার অবদান কখনো ক্ষয় হবে না।

তিনি বলেন, শিক্ষা থাকলে আলো জ্বলবেই। আলোকিত হবেই সমাজ।

আড়াইহাজারের এ সংসদ সদস্য পূর্বের সময় এবং বর্তমান সময়ের ফারাক তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। তিনি বলেন, আগে শিক্ষার্থীদের সেশন জটে আটকে থাকতে হতো। শিক্ষা কার্যক্রম ব্যহত হতো। কিন্তু মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সেশন জট নামক অভিশাপ থেকে মুক্তি পেয়েছে।

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অন্যতম আকর্ষণ ছিল তাজবীর সজীবের নির্দেশনায় নাটিকা "আলোক শিখা"। এছাড়াও ছিল বিতর্ক অনুষ্ঠানসহ নানা আয়োজন।

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার