• সোমবার   ২৭ জুন ২০২২ ||

  • আষাঢ় ১৩ ১৪২৯

  • || ২৬ জ্বিলকদ ১৪৪৩

সর্বশেষ:
মঙ্গলবার সিলেটের যেসব এলাকায় বিদ্যুৎ থাকবে না ওসমানীনগরে ২শ মিটার অবৈধ কারেন্ট জাল পুড়িয়ে বিনষ্ট "প্রধানমন্ত্রীর দক্ষ ব্যবস্থাপনায় কেউ না খেয়ে মারা যায়নি" বন্যায় সিলেটে ১২ কোটি টাকার প্রাণিসম্পদের ক্ষতি প্রাকৃতিক দুর্যোগে সিলেটে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫২ হবিগঞ্জে নদীর পানি কমেছে, উন্নতি নেই হাওরাঞ্চলে হেলিকপ্টারে করে সিলেটের বন্যা পর্যবেক্ষণ করলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী
১৮

আবদুল গাফফার চৌধুরীর মরদেহ দেশে আসছে আজ

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ২৮ মে ২০২২  

একুশের অমর সংগীতের রচয়িতা আবদুল গাফফার চৌধুরীর মরদেহ সম্পূর্ণ রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থাপনায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে আজ শনিবার ঢাকায় পৌঁছাবে।

যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত বাংলাদেশ হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনিম এ তথ্য জানিয়েছেন।

সাইদা মুনা তাসনিম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে গাফফার চৌধুরীর মরদেহ সম্পূর্ণ রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থাপনায় বাংলাদেশে পাঠানোর প্রক্রিয়া সম্পন্ন করেছে বাংলাদেশ হাইকমিশন, লন্ডন।

তিনি আরো বলেন, সব কিছু ঠিক থাকলে শুক্রবার সন্ধ্যায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি বিমানের ফ্লাইট (ফ্লাইট নম্বর বিজি ২০২) হিথ্রো বিমানবন্দর থেকে আবদুল গাফফার চৌধুরীর মরদেহ নিয়ে রওনা দেবে। ফ্লাইটটি শনিবার বাংলাদেশ সময় দুপুরে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে পৌঁছাবে। একই ফ্লাইটে গাফফার চৌধুরীর পরিবারের সদস্যদেরও ঢাকায় প্রেরণের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

হাইকমিশনার জানান, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সহযোগিতায় ১৯৭৪ সালে আবদুল গাফফার চৌধুরী তার স্ত্রীর চিকিৎসার জন্যে লন্ডন আসেন। প্রায় পাঁচ দশক পর বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার শেষ ইচ্ছা অনুযায়ী স্বদেশ ভূমিতে, তার প্রিয় স্ত্রীর কবরের পাশে তাকে দাফনের ব্যবস্থা করেছেন।

তিনি আরো বলেন, আবদুল গাফফার চৌধুরী গত ১৯ মে মারা যান। সেদিন থেকেই বাংলাদেশ হাইকমিশন, লন্ডন সার্বক্ষণিক মরহুমের পরিবারের পাশে রয়েছে। ২০ মে ব্রিকলেন মসজিদে তার প্রথম জানাজার পর পূর্ব লন্ডনের ঐতিহাসিক শহীহিদ আলতাব আলী পার্কের শহিদ মিনারে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় সর্বস্তরের মানুষ তার প্রতি শেষ শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। গত ২৩ মে বাংলাদেশ হাই কমিশন, লন্ডন তার স্মরণে এক মিলাদ মাহফিল ও শোকসভায় আয়োজন করে।

গাফফার চৌধুরীর মৃত্যুর পর থেকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ, ব্রিকলেন মসজিদ কর্তৃপক্ষ, ব্রিকলেন ফিউনারেল সার্ভিস ও শহিদ আলতাব আলী পার্ক কর্তৃপক্ষসহ ব্রিটিশ-বাংলাদেশি কমিউনিটির সর্বস্তরের মানুষের কাছ থেকে আমরা সহযোগিতা পেয়েছি বলেও জানান হাইকমিশনার।

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার