• রোববার   ২৯ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৫ ১৪২৯

  • || ২৬ শাওয়াল ১৪৪৩

সর্বশেষ:
নেই বৈধ কাগজ, বন্ধ ৫ টি ডায়াগনস্টিক সেন্টার সরকারের খাদ্য সহায়তা পেল সিলেটের ১৩ হাজার পরিবার শাহজালাল মাজারে ওরস উপলক্ষে ‘লাকড়ি তোড়া’ উৎসব ১২ ঘণ্টায় ৭ নবজাতকের জন্ম! জাফলং গিলছে বালুখেকোরা, অভিযান-জরিমানা সেমিফাইনালে মাধবপুর বালিকা দল
৩৬

ইন্টারপোলের মাধ্যমে সেফুদাকে আইনের আওতায় আনা সম্ভব

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ১৯ জানুয়ারি ২০২২  

ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের অভিযোগে অস্ট্রিয়া প্রবাসী সেফাত উল্লাহ ওরফে সেফুদার বিরুদ্ধে বিচার শুরুর আদেশ দিয়েছেন আদালত। তার অনুপস্থিতিতে বিচার পরিচালনা করছে রাষ্ট্রপক্ষ।তাকে আদালতে হাজির করতে দফায় দফায় বিভিন্ন প্রক্রিয়া গ্রহণ করেও ব্যর্থ হয়েছে রাষ্ট্রপক্ষ। তারা বলেছে, শুধু স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ইন্টারপোলের মাধ্যমে বিদেশের কোনও আসামিকে গ্রেফতার করতে পারে।এটা আদালতের গ্রেফতারি পরোয়ানা দিয়ে সম্ভব নয়।

তারপরেও সেফুদাকে আদালতে হাজির করতে ফৌজদারি কার্যবিধির বিধানমতে দুটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকা বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছে। এরপরও আদালতে হাজির না হওয়ায় তার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ আনুষ্ঠানিকভাবে বিচার শুরু করেছে বলে জানান সংশ্লিষ্ট ট্রাইব্যুনালের পাবলিক প্রসিকিউটর নজরুল ইসলাম শামীম।


আসামিদের অনুপস্থিতিতে কীভাবে রাষ্ট্রপক্ষ বিচার পরিচালনা হয় জানতে চাইলে সংশ্লিষ্ট ট্রাইব্যুনালের পাবলিক প্রসিকিউটর নজরুল ইসলাম শামীম বলেন, আসামির অনুপস্থিতিতে বিচার পরিচালনা করতে হলে প্রথমে তদন্ত রিপোর্ট গ্রহণ করে আসামির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করতে হয়।এরপর সংশ্লিষ্ট থানা ওয়ারেন্ট তামিল করতে ব্যর্থ হলে তার বিরুদ্ধে সম্পত্তি ক্রোকের আদেশ দেওয়া হয়। সম্পত্তি ক্রোকের আদেশ তামিল হওয়া সাপেক্ষে আসামিকে আদালতে হাজির হওয়ার জন্য জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। এরপরও যদি  আসামি  আদালতে  হাজির না হয় সেই ক্ষেত্রে তার অনুপস্থিতিতে বিচারকার্য পরিচালনা করা যাবে। আমরা প্রতিটি ধাপ অতিক্রম করে তার অনুপস্থিতিতে  বিচারকার্য পরিচালনা শুরু করছি।

উল্লেখ্য,ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করার অভিযোগে অস্ট্রিয়া প্রবাসী সেফাত উল্লাহ ওরফে সেফুদার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত।এর ফলে মামলাটির আনুষ্ঠানিক ভাবে বিচার শুরু হলো।

এর আগে গত ২০১৯ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর তার বিরুদ্ধে  গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন একই ট্রাইব্যুনালের বিচারক।

এর আগে ২০১৯ সালের ১০ সেপ্টেম্বর মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের উপ-পরিদর্শক পার্থ প্রতিম ব্রহ্মচারী আসামি সেফাত উল্লাহ সেফুদার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮-এর ২৫, ২৯ ও ৩১ ধারার অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় প্রতিবেদন দাখিল করেন।

২০১৯ সালের ২৩ এপ্রিল ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনাল ঢাকা বারের আইনজীবী আলীম আল রাজী (জীবন) মামলাটি দায়ের করেন। আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার