• সোমবার   ৩০ জানুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ১৬ ১৪২৯

  • || ০৭ রজব ১৪৪৪

সর্বশেষ:
শ্রীমঙ্গলে অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে অনুদানের চেক বিতরণ বাংলার মানুষের কথা ভেবেই দেশে এসেছি, পালাতে নয়: প্রধানমন্ত্রী মৌলভীবাজারে বিশ্ব কুষ্ঠ দিবস পালিত সিলেটে ভারতীয় চোরাই চিনিসহ কারবারি গ্রেফতার শাবিপ্রবিতে শূন্য আসন পূরণে ফের ডাকা হবে শিক্ষার্থী হবিগঞ্জে দুদকের মামলায় ৩ কর্মকর্তা-কর্মচারী কারাগারে এই সরকারের আমলে মানুষ বিচার পেয়েছে: স্পিকার
১৬

৩০ বছর ধরে লালি গুড়ের ঐতিহ্য ধরে রেখেছেন হবিগঞ্জের আয়ধন 

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ২৪ জানুয়ারি ২০২৩  

আখের রস জাল দিয়ে তৈরি করা লালি (স্থানীয়ভাবে ডাকা হয়) গুড় বিক্রিতে সংসার চলে ষাটোর্ধ্ব আয়ধন আলীর। প্রায় ৩০ বছরের এ পেশায় তার প্রতিদিনকার রোজগার প্রায় হাজার টাকা।


আয়ধন আলী হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলার সুরেশ্বর গ্রামের বাসিন্দা। পরিবারের সদস্য শুধু তিনি আর তার স্ত্রী। তার দুই মেয়েকে বিয়ে দিয়েছেন। ভিটেমাটি ছাড়া তার কোনো সম্পদ নেই। সংসারটি চলে লালি গুড় বিক্রির আয় দিয়েই।  

তিনি চুনারুঘাট উপজেলার ঘরগাঁও এলাকা থেকে আখের রস সংগ্রহ করেন। পরে রস জাল দিয়ে লালি গুড় তৈরির পর কাঁধে নিয়ে বিক্রি করেন বিভিন্ন স্থানে।  

আয়ধন আলীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গুড় বিক্রির আয় থেকে তিনি তার দুই মেয়ের বিয়ে দিয়েছেন। দিনে ৩০ থেকে ৪০ কেজি গুড় বিক্রি করেন। এতে প্রতিদিনকার মুনাফা থাকে ৭শ থেকে এক হাজার টাকা পর্যন্ত। এই ব্যবসা চলে শীতকালের দুই থেকে তিন মাস ধরে।  

তিনি বলেন, ‘আগে শীতকালে প্রতিদিনই কাঁধে করে গুড় নিয়ে গ্রামে গ্রামে বিক্রি করতাম। আর গরমের সময় একটি টং দোকান চালাতাম, এখন শেষ বয়সে এসে আর আগের মতো এ কাজগুলো করতে পারি না, প্রায়দিনই অবসর থাকতে হয়’।  

আয়ধন আলী সরকারি ভাতা পাওয়ার জন্য স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কর্মকর্তাদের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।  

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার