• সোমবার   ২৭ জুন ২০২২ ||

  • আষাঢ় ১৩ ১৪২৯

  • || ২৬ জ্বিলকদ ১৪৪৩

সর্বশেষ:
মঙ্গলবার সিলেটের যেসব এলাকায় বিদ্যুৎ থাকবে না ওসমানীনগরে ২শ মিটার অবৈধ কারেন্ট জাল পুড়িয়ে বিনষ্ট "প্রধানমন্ত্রীর দক্ষ ব্যবস্থাপনায় কেউ না খেয়ে মারা যায়নি" বন্যায় সিলেটে ১২ কোটি টাকার প্রাণিসম্পদের ক্ষতি প্রাকৃতিক দুর্যোগে সিলেটে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫২ হবিগঞ্জে নদীর পানি কমেছে, উন্নতি নেই হাওরাঞ্চলে হেলিকপ্টারে করে সিলেটের বন্যা পর্যবেক্ষণ করলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী
৩৫৯২

পুরুষ সেজে চাচিকে নিয়ে পালালো তরুণী, প্রেম ও বিয়ের পর হইচই

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ২৯ মে ২০২২  

চাচির সঙ্গে প্রেম করতে পুরুষ বনে যান ২২ বছর বয়সী তরুণী। নিজের নাম বদলে রাখেন ফাহিম। সালোয়ার-কামিজ ছেড়ে পরতে শুরু করেন প্যান্ট-শার্ট। এর মধ্যেই ফাহিমের প্রেমে হাবুডুবু খান চাচি। ভাতিজার প্রেমে মত্ত হয়ে ছাড়নে স্বামীকেও। শেষে দুজনেই পালিয়ে বিয়ে করেন।

ঘটনাটি রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার। কয়েকদিন আগে এ ঘটনা ঘটলেও শুক্রবার সকালে বিষয়টি জানাজানি হয়। তবে চাচিকে ভাগিয়ে ঢাকায় নিয়ে বিয়ে করেন কথিত ফাহিম।

স্থানীয়রা জানায়, নিজেকে ফাহিম দাবি করা তরুণীর সাত মাস আগে বিবাহবিচ্ছেদ হয়। তার দেড় বছর বয়সী একটি মেয়েও রয়েছে। হঠাৎ তিনি নিজের মধ্যে পরিবর্তন আনেন। নিজেকে পুরুষ হিসেবে ঘোষণা দিয়ে ছেলেদের প্যান্ট-শার্ট পরতে শুরু করেন। চুলও ছেলেদের মতো ছোট করে রাখেন। এরপর ১৯ বছর বয়সী দূর সম্পর্কের চাচির সঙ্গে গড়ে তোলেন প্রেমের সম্পর্ক। প্রেমের টানে চাচি নিজের স্বামীর সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদ ঘটান। তার কোনো সন্তান নেই। এরপর কথিত ফাহিম ও চাচি ঢাকায় পালিয়ে গিয়ে বিয়ে করেন। পরে দুজনে ঢাকায় এক আত্মীয়ের বাড়িতে গিয়ে থাকতে শুরু করেন।

এদিকে, ফাহিমের পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় জিডি করা হয়েছে। আর ফাহিমের চাচির পরিবার তাদের দুজনকেই কৌশলে বাড়িতে আনার চেষ্টা করে। অবশেষে বৃহস্পতিবার রাতে কথিত ফাহিম দূর সম্পর্কের ওই চাচিকে নিয়ে বাড়ি ফেরেন। তাদের ফিরে আসার খবরে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। পুলিশ এসে তাদের দুজনকে তদন্ত কেন্দ্রে নিয়ে গেছে।

দূর সম্পর্কের চাচির বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, দুজনে ঢাকায় গিয়ে বিয়ে করেছেন। তবে বিয়ের কাগজ দেখাতে পারেননি। তাদের মধ্যে সম্পর্ক হলেও ফাহিম যে নকল পুরুষ সেজেছিলেন, তা টের পাননি দূর সম্পর্কের চাচি। তবে কথিত ফাহিমের বিরুদ্ধে তার কোনো অভিযোগ নেই।

গোদাগাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ইসলাম বলেন, আজব এক ঘটনা। তারা কী বলে না বলে, কিছুই ঠিক নেই। তাদের এ সম্পর্ক কোনো আইনের মধ্যেও পড়ে না। তাই জিডির ভিত্তিতে ফাহিম নাম ধারণ করা মেয়েটিকে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। আইনি প্রক্রিয়া শেষে অন্য মেয়েটিকেও পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার