• সোমবার   ১৯ এপ্রিল ২০২১ ||

  • বৈশাখ ৫ ১৪২৮

  • || ০৬ রমজান ১৪৪২

সর্বশেষ:
শ্রীমঙ্গলে কঠোরভাবে লকডাউন কার্যকর করতে পুলিশের চেকপোস্ট করোনা: সিলেটে ২৪ ঘন্টায় ২ জনের মৃত্যু করোনা: স্থান সঙ্কুলান হচ্ছে না শামসুদ্দিন হাসপাতালে করোনায় এক দিনে আবারও শতাধিক মৃত্যু জগন্নাথপুরে বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় প্রেমিকের আত্মহত্যা! বনানীর কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত হলো কবরী

হুমকির মুখে জৈন্তাপুরের সারি নদীর অস্তিত্ব

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ২৬ মার্চ ২০২১  

সিলেট জেলার ঐতিহ্যবাহী একটি নদীর নাম ‘সারি নদী’। জৈন্তাপুর উপজেলায় অবস্থিত এ নদী তার স্বচ্ছ নীল রঙের জন্য বিখ্যাত এবং সুপরিচিত।প্রতিদিন হাজার হাজার পর্যটক ভিড় করেন নদীর সৌন্দর্য উপভোগ করতে। কিন্তু আশংকার বিষয় হলো নদীর অস্তিত্ব আজ হুমকির মুখে।প্রতিবছর বন্যায় উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের সাথে নেমে আসা বালুতে ভরাট হয়ে যাচ্ছে সারি নদীর তলদেশ। মৌসুমে নদীর নাব্যতা হ্রাস পাওয়ায় পর্যটকবাহী নৌকাগুলোর দুর্ভোগ বেড়েছে।

এ বছর বৃষ্টিপাত কম হওয়ায় এবং পানি প্রবাহ কমে যাওয়ার ফলে সারি নদীর পানি গত বছরের চেয়ে অনেক কমে গেছে। প্রতিবছর নদীর তলদেশ ভরাট হওয়ার কারণে নদী হারাতে বসেছে তার অতীত ঐতিহ্য। সেই সাথে নদীর তলদেশ ভরাট ও অবাধে পানি নিষ্কাষন না হওয়ায় বর্ষা মৌসুমে সহজেই নদীর দু’কূল বয়ে আসে বন্যা। এছাড়া পানি প্রবাহ কমে যাওয়ার ফলে এখন অসহায় হয়ে পড়েছেন এ অঞ্চলের জেলেরা। নদীতে আর আগের মত মাছ না থাকায় পেশা বদল করে অন্য পেশা বেছে নিতে হচ্ছে মৎস্যজীবীদের।

এ বিষয়ে আব্দুল হাই আল হাদি বলেন, ‘সারি নদীর উৎস মুখে ভারত সরকার একটি জলবিদ্যুৎ প্রকল্প সৃষ্টি করার জন্য দীর্ঘদিন থেকে কাজ করছে, যার ফলে পানি প্রবাহ আর আগের মতো থাকছে না। তিনি আরও বলেন, পাহাড়ি ঢলে উজান থেকে আসা বালি সরানোর দ্রুত ব্যবস্থা করা না গেলে সারি নদীর চিত্র বদলে যাবে। হয়তো এক সময় মরা নদীতে পরিণত হতে পারে এ নদী। এ বিষয়ে কথা বলতে উপজেলা পানি উন্নয়ন কর্মকর্তা ইঞ্জিনিয়ার সেলিম বাবু বলেন আমাদের একটা প্রকল্পে আছে সারি নদী। আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি যতদ্রুত সম্ভব ড্রেজিং এর ব্যবস্থা করার।’

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার