বৃহস্পতিবার   ১৭ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ২ ১৪২৬   ১৭ সফর ১৪৪১

সর্বশেষ:
অবৈধ যানবাহনের বিরুদ্ধে সিলেট-ঢাকা মহাসড়কে অ্যাকশনে পুলিশ সিলেটে ছিনতাই করে ঢাকায় পালিয়ে গিয়েও রক্ষা হলনা কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস’র উদ্বোধন আজ সড়ক ব্যবহারে সবাইকে সচেতন হওয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর
৬০

হাসপাতাল যেনো কুকুর-বিড়াল-ছাগলের হাট!

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৯ অক্টোবর ২০১৯  

 


হবিগঞ্জ জেলা সদর আধুনিক হাসপাতাল এখন কুকুর-বিড়াল ও ছাগলের আস্তানায় পরিণত হয়েছে। রোগীদের বদলে এখন বিচানায় ঘুমায় এসব প্রাণী। আবার বিভিন্ন সময় বিড়াল নবজাতকসহ রোগীদের উপর আক্রমন করে বলেও অভিযোগ রয়েছে।

হাসপাতালে আসা রোগীদের অভিযোগ- প্রতিদিন বেশ কয়েকটি কুকুর-বিড়াল ও ছাগল বিভিন্ন ওয়ার্ডে ঘুরে বেড়ায়। রোগীদের বিচানায় রাতে একসাথে ঘুমায় বিড়াল। অনেক সময় এসব বিড়াল রোগীদের উপর আক্রমণও করে। খাবারে মুখ দিয়ে নষ্ট করে দেয়।

শুধু তাই নয়, বেশ কয়েকটি ছাগল ছানাও এসব কুকুর-বিড়ালের সাথে প্রতিনিয়ন বিচরণ করে হাসপাতালের ভেতরে। এসময় প্রাণী হাসপাতালের ভেতরেই প্রসাব-পায়খানাও করে থাকে। অনেক সময় রোগীদের বিচানায়ও তারা প্রসাব-পায়খানা করে বলে অভিযোগ করেছেন অনেকে।

সরেজমিনে বুধবার দেখা যায়- ২৫০ শয্যা হবিগঞ্জ জেলা সদর আধুনীক হাসপাতালের নবনির্মিত ভবনের ভেতরেই এসব কুকুর-বিড়াল ও ছাগলের বেশি উৎপাত রয়েছে। সেখানে এসব প্রাণী নিশ্চিন্তে বিচরণ করছেন। বেশ কয়েকটি বিড়ালছানা ওষধ রাখার আলমারিতে ঘুমিয়ে আছে। শুধু নতুন ভবনেই নয়, পুরাতন ভবনের শিশু ও গাইনী ওয়ার্ডের ভেতরেও রয়েছে এসব বিড়ালের অবাদ বিচরণ।

হাসপাতালের তত্বাবধায়ক রথীন্দ্র চন্দ্র দেব বলেন- ‘হাসপাতালে বিড়াল থাকতে পারে, এটা স্বাভাকিব। কিন্তু কুকুর ও ছাগল থাকার কথা না। কি করে এসব প্রাণী হাসপাতালের ভেতরে প্রবেশ করছে তা আমি দেখব। স্টাফ থাকার পরেও কেন এমন হবে তা যাচাই করা হবে।

অভিযোগ রয়েছে- হাসপাতালের ওয়ার্ড মাস্টার নজরুল ইসলাম হাসপাতালের দায়িত্ব পালনে উদাসীন। তিনি হাসপাতালে আসলে ঠিকভাবে দায়িত্বপালন করেন না। আড্ডা-গল্পে দিন পার করেই তিনি চলে যান।

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার