• সোমবার   ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||

  • আশ্বিন ১২ ১৪২৭

  • || ১০ সফর ১৪৪২

সর্বশেষ:
সবগুলো নদী খনন করে বাঁধ নির্মাণ করা হবে: পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী ঢলে সুনামগঞ্জ-বিশ্বম্ভরপুর-তাহিরপুরের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন ইউক্রেনে সামরিক বিমান বিধ্বস্ত হয়ে নিহত ২২
৫৯

সিলেট ভোক্তা অধিকারের ৬ বছরে ৪৭৮টি অভিযান

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ৮ সেপ্টেম্বর ২০২০  

জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর সিলেটে গত ৬ বছরে সব মিলিয়ে ৪৭৮টি অভিযান পরিচালনা করেছে। এ অভিযানে ১৪৭৩টি প্রতিষ্ঠানকে ৮৪ লাখ ৬৮ হাজার ৬’শ টাকা জরিমানা প্রদান করা হয়েছে।

জানা যায়, সাধারণ ভোক্তাদের অধিকার রক্ষায় কাজ করতে ২০১০ সালে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন অধিদপ্তর শুরু হয়। কিন্তু সিলেটে এ কার্যালয়ের উদ্বোধন হয় ২০১৪ সালে। শুরুর দিক থেকে জনবল সংকটে থাকলেও বর্তমানে এগিয়ে চলছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের কাজ।

জনবল সংকটে থাকায় ২০১৪-১৫ অর্থ বছরে মাত্র ৬টি অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ অভিযানে ৩৫টি প্রতিষ্ঠান থেকে ১ লক্ষ ৩২ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করে। ওই বছরের এপ্রিলে একটি অভিযোগ নিষ্পত্তি হওয়ায় আরো ২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় এবং সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক ২৫ শতাংশ প্রণোদনার অর্থ ভোক্তাকে প্রদান করা হয়।
২০১৫-২০১৬ অর্থবছরে ২৫টি অভিযান পরিচালনা করে ১৩৭টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে তদারকির আওতায় আনা হয়। এর মধ্যে ১০৯টি প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা আরোপ করা হয় ৬ লক্ষ ৩৩ হাজার ৫শ টাকা। ওই বছর ১২টি অভিযোগ নিষ্পত্তি করে আরো ৮৩ হাজার ৫শ টাকা জরিমানা করা হয়, যার ২৫% হিসেবে ২০ হাজার ৮৭৫ টাকা প্রদান করা হয় অভিযোগকারীদের।

এরপর ২০১৬-২০১৭ অর্থবছরে তাদের কার্যপরিধি বৃদ্ধি পায় আরো কয়েকগুণ। এ বছরে ৮০টি অভিযান পরিচালনা করে ২৫৩টি প্রতিষ্ঠানকে ১৫ লক্ষ ৭শ টাকা জরিমানা করা হয়্। পাশাপাশি ২৬টি অভিযোগ নিষ্পত্তির মাধ্যমে ৩৪ হাজার ৩শ টাকা জরিমানা করা হয় যার মধ্যে ৭ হাজার ৯৫০ টাকা প্রদান করা হয় অভিযোগকারীকে।

২০১৭-২০১৮ অর্থবছরে একই ধারাবাহিকতা বজায় রেখে ৬৪টি অভিযান পরিচালনা করে সিলেট জেলা কার্যালয়। এতে ২৪২টি প্রতিষ্ঠানকে ১৪ লক্ষ ২ হাজার ৮শ টাকা জরিমানা করা হয়। অভিযোগ নিষ্পত্তি হয় ৭১টি। যা থেকে আরো ১ লক্ষ ৭৯ হাজার ৮শ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। পাশাপাশি অভিযোগকারীকে প্রদান করা হয় ৩৬ হাজার ৩শ ২৫ টাকা।

২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে আবারও বৃদ্ধি করা হয় অভিযান সংখ্যা। এ বছর ১১৫টি অভিযান পরিচালনা করে ৩৩৫টি প্রতিষ্ঠানকে ১৭ লক্ষ ২৯ হাজার টাকা জরিমানা করে অধিদপ্তর। এসময়ে ১০২ টি অভিযোগ নিষ্পত্তি করে ১ লক্ষ ১৩ হাজার ৪শ টাকা জরিমানা করা হয়, যেখান থেকে অভিযোগকারী পায় ২৬ হাজার ৩৫০ টাকা।

সম্প্রতি গত হওয়া ২০১৯-২০২০ অর্থবছরেও পেয়াজের মূল্য নিয়ন্ত্রন, লবন নিয়ে গুজব প্রতিরোধে কাজ করে ভোক্তা অধিকার। ১৬৩টি অভিযান পরিচালনা করে ৪৫৮টি প্রতিষ্ঠানকে ১৯ লক্ষ ৬৮ হাজার ৬শ টাকা জরিমানা করা হয়। পাশাপাশি ১০৪টি অভিযোগ নিষ্পত্তি করে ১ লক্ষ ৪৯ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। যার মধ্য থেকে ৩৫ হাজার ৭৫০ টাকা প্রণোদনা হিসেবে অভিযোগকারকে দেয়া হয়।

চলতি অর্থবছরের জুলাই মাসে ২৫ টি অভিযান পরিচালনা করে ৪১ টি প্রতিষ্ঠানকে ৫ লক্ষ ১৯ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। পাশাপাশি ১৯ টি অভিযোগ নিষ্পত্তি করে ২১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় যার ২৫ শতাংশ হিসেবে ৫ হাজার ২৫০ টাকা প্রদান করা হয় অভিযোগকারীকে।

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন অধিদপ্তর সিলেটের সহকারী পরিচালক মাসুদ আহমদ জানান, ইতোমধ্যে অসাধু ব্যবসায়ীদের আতংক ও ক্ষতিগ্রস্থ ভোক্তাদের শেষ আশ্রয় হিসেবে পরিচিত লাভ করেছে ভোক্তা অধিদপ্তর। প্রশাসন ও আইনশৃংখলা বাহিনীর সহযোগিতায় আগামীতে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের আরো এগিয়ে যাবে।
 

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার
সিলেট বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর