সোমবার   ২০ জানুয়ারি ২০২০   মাঘ ৭ ১৪২৬   ২৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১

সর্বশেষ:
ঢাকার দুই সিটিতে ভোট পিছিয়ে ১ ফেব্রুয়ারি পেছাল এসএসসি পরীক্ষা  সুরমা নদী খনন করার কথা জানালেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী   ‘দুর্নীতিবাজ যতই শক্তিশালী হোক কাউকে ছাড় দেওয়া হচ্ছে না’ ফিরলেন তামিম, নতুন মুখ হাসান মাহমুদ যেভাবে দুধ উৎপাদনে বাড়ছে সুনামগঞ্জ জেলার সক্ষমতা
১৫০

সিলেটবাসীদের শিলচর যাওয়া যেভাবে সহজ হলো

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২ জানুয়ারি ২০২০  

করিমগঞ্জ থেকে শিলচর হয়ে সিলেটের মধ্যে বাস চলাচল করার একটি নতুন সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়েছে। আর আসাম সিলেট তথা বাংলাদেশের সঙ্গে নৌপথগুলো ব্যবহারেও ভীষণ উদগ্রীব। এছাড়া কাছাড়ে দু ‘হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে প্রস্তাবিত গ্রিনফিল্ড বিমানবন্দর নির্মাণের পরিকল্পনাও অনেক দূর এগিয়েছে। এসব বিষয় নিয়ে কথা বলতে আসাম রাজ্য সরকারের একটি প্রতিনিধি দল সিলেট সফরে আসছে। তারা সিলেটের জেলা প্রশাসন ও চেম্বার নেতাদের সঙ্গে মত বিনিময় করবেন। কূটনৈতিক সূত্র এসব তথ্য নিশ্চিত করেছে।

শিলচর ও সিলেটের মধ্যে বাস চলাচলের বিষয়ে আসাম সরকার তার  সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দিল তার কেন্দ্রীয় সরকারকে। সেই সূত্রে ভারতীয় দায়িত্বশীল সূত্র ইতিমধ্যে বাংলাদেশকে আসামের আগ্রহের কথা জানিয়েছে।

সূত্রগুলো বলেছে, আসামের বিজেপি সরকার প্রতিবেশী সিলেটের মাধ্যমে গোটা বাংলাদেশের সঙ্গে বাণিজ্য সম্পর্ক আরো সুদৃঢ় করতে চাইছে। শুক্রবার আসামের বাংলাদেশ উপ হাইকমিশন সিলেটের সঙ্গে বাস চলাচলের বিষয়টি জানতে পারলো আসামের বাণিজ্যমন্ত্রী চন্দ্রমোহন পাটোয়ারীর মাধ্যমে।

কূটনীতিক সূত্র নিশ্চিত করেছে যে, ঢাকা এবং গৌহাটির মধ্যে সরাসরি বাস চলাচল শুরু করতেও আসাম সরকার উদগ্রীব। তারা বিষয়টি ইতিমধ্যেই ভারতের কেন্দ্রীয় বিদেশ মন্ত্রণালয়ের কাছে প্রস্তাব আকারে প্রেরণ করেছে বলেও কর্মকর্তারা নিশ্চিত করেন।

কর্মকর্তরা আরো বলেন, আসাম সরকার ইতিমধ্যে চট্টগ্রাম এবং মংলা বন্দর ব্যবহারের সবুজ সংকেতও পেয়েছে। দু'দেশের মধ্যে এ সংক্রান্ত চুক্তিও স্বাক্ষর হয়েছে। ঢাকায় একটি সূত্র বলেছে, সড়ক, নৌ ও আকাশ পথ যাতে সমানভাবে সক্রিয় থাকে, সেই চেষ্টাই করা হচ্ছে। আসামের সঙ্গে বাংলাদেশের নৌপথ চাঙ্গা করতে ইতিমধ্যে বরাক নদীতে খনন কাজ সম্পন্ন হয়েছে। আগামী কিছুদিনের মধ্যে  ব্রহ্মপুত্র খননের কাজ শুরু করা হবে।

চট্টগ্রাম এবং মংলা বন্দরে খননের কাজ চলছে। কি কি সুবিধা রয়েছে এবং আরো কি কি সুবিধা পাওয়া যেতে পারে তা খতিয়ে দেখতে রাজ্য সরকারের বাণিজ্য বিভাগের কর্মকর্তাদের  একটি দল চলতি মাসেই বাংলাদেশে আসবে। এছাড়াও গ্রিনফিল্ড বিমানবন্দর নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে আসামে। ইতিমধ্যে তিনটি জায়গাকে বেছে নেওয়া হয়েছে। খুব শিগগিরই এসব জায়গা পরিদর্শন করবেন ভারতের কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহণ বিভাগের কর্মকর্তারা। ধারণা করা হচ্ছে, কাছাড়ে বড় বিমান বন্দর হলে ওসমানী বিমান বন্দরকে কিছু দিক থেকে আরেক ধাপ প্রতিযোগিতার মুখোমুখি হওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হতে পারে।
 

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার
এই বিভাগের আরো খবর