রোববার   ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৩০ ১৪২৬   ১৭ রবিউস সানি ১৪৪১

সর্বশেষ:
বুদ্ধিজীবি দিবসে মৌলভীবাজারে আলোচনা সভা সুনামগঞ্জে বুদ্ধিজীবী দিবস পালন সুনামগঞ্জে মহিলা পরিষদের গণসমাবেশ অনুষ্ঠিত গোয়াইনঘাটে যথাযোগ্য মর্যাদায় শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস পালিত সিলেটে বই মেলায় কাপড়ের দোকান ! প্রাথমিকে নেয়া হবে ১৮ হাজার শিক্ষক, ২৬ ডিসেম্বরের মধ্যে ফল ‘মোশতাক, জিয়ার মতো মীরজাফররা আর যেন ক্ষমতায় না আসে’
২৩

সরকার গঠনে ব্যর্থতা, তৃতীয় নির্বাচনের মুখে ইসরায়েল

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২১ নভেম্বর ২০১৯  

দ্বিতীয় নির্বাচনেও সরকার গঠন ব্যর্থ হলো ইসরায়েল। ফলে দেশটিতে এখন তৃতীয় দফা নির্বাচন অনিবার্য হয়ে পড়েছে।

আলজাজিরা জানায়, ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর পর এবার মন্ত্রিসভা গঠন করতে ব্যর্থ হয়েছেন তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী বেনি গানৎজও।
 
সরকার গঠনের জন্য তাকে ২৮ দিন সময় দিয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট রুভেন রিভলিন। কিন্তু এতে ব্যর্থ হন তিনি। 

সরকার গঠনে ব্লু অ্যান্ড হোয়াইট পার্টিকে সমর্থন দিতে অস্বীকৃতি জানান সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী অ্যাভিগডর লিবারম্যান। বুধবার সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেন ইসরায়েল বেইনেতু পার্টির এই নেতা।

সেদিনই সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সরকার গঠনে ব্যর্থতার কথা জানান বেনি গানৎজ।

তিনি বলেন, ‘ইসরায়েলের অখণ্ডতা, নীতি এবং মূল্যবোধ রক্ষায় একটি সরকার গঠনের জন্য গত ২৮ দিনে ছোট থেকে বড় কোনো প্রচেষ্টা বাদ দিইনি।’

সাবেক এই সেনাপ্রধানের দল মধ্যপন্থী ব্লু অ্যান্ড হোয়াইট পার্টি ও এক বিবৃতিতে মন্ত্রিসভা গঠনের ব্যাপারে ব্যর্থতার কথা স্বীকার করেছে।

সরকার গঠনে ব্যর্থতার জন্য ডানপন্থী একটি দলকে দায়ী করেছেন গানৎজ। একজন বিশেষ ব্যক্তির স্বার্থ রক্ষায় দলটি তাকে সমর্থন দেয়নি বলে অভিযোগ তোলেন তিনি।
 
গানৎজ বলেন, ‘হাসপাতালের বারান্দায় পড়ে থাকা রোগীদের চেয়ে একজন বিশেষ ব্যক্তির স্বার্থকেই সবচেয়ে প্রাধান্য দিয়েছে তারা।’

এর আগে ডানপন্থী লিকুদ পার্টির নেতা নেতানিয়াহু তার প্রধান প্রতিপক্ষ গানৎজের সমালোচনা করে দাবি করেন, তারা ইসরায়েলকে ধ্বংস করার চেষ্টা করছে।

তিনি  বলেন, ‘ইসরায়েলের শত্রুদের কাছ থেকে নির্দেশনা পায় এমন সন্ত্রাসবাদীদের সহায়তা নিয়ে তারা একটি সংখ্যালঘু সরকার গঠন করতে চাইছে।’

সরকার গঠনে গানৎজের ব্যর্থতার মধ্যে দিয়ে নতুন করে রাজনৈতিক সংকটের মুখে পড়ল ইসরায়েল। গত এপ্রিলে দেশটিতে প্রথম দফা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এতে জয়ী দল লিকুদ পার্টি সরকার গঠনে ব্যর্থ হলে অক্টোবরে দ্বিতীয় দফা নির্বাচন হয়।

দ্বিতীয়বারও কোনো দলই সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পাওয়ায় জোট সরকার গঠনের নির্দেশ দেন দেশটির প্রেসিডেন্ট। এতে প্রথমে লিকুদ পার্টি এবং পরবর্তীতে ব্লু অ্যান্ড হোয়াইট পার্টিকে আহ্বান করা হলে দুই দলই সরকার গঠনে ব্যর্থ হয়।

এমন পরিস্থিতিতে ইসরায়েলে নতুন সরকার গঠনের জন্য তৃতীয় দফা নির্বাচন অনেকটাই অনিবার্য হয়ে উঠেছে।

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার
এই বিভাগের আরো খবর