শনিবার   ২৮ মার্চ ২০২০   চৈত্র ১৪ ১৪২৬   ০৩ শা'বান ১৪৪১

সর্বশেষ:
করোনা ভাইরাস: সিলেটের বিভিন্ন স্থানে সেনাদের টহল  সিলেটেও করোনাভাইরাস পরীক্ষার ল্যাব শনিবার বসছে আরও একটি স্প্যান করোনায় আক্রান্ত ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন অকারণে সাধারণ মানুষকে হয়রানি নয়: তথ্যমন্ত্রী মৌলভীবাজারের সাত উপজেলায় হোম কোয়ারেন্টিনে ৫৯৭  সিলেটে নতুন করে কোয়ারেন্টিনে ১০০, মুক্তি ১৬৯ জনের  করোনা বাধা হতে পারেনি তাদের ভালোবাসায় করোনায় নতুন আক্রান্ত ৪, মোট ৪৮: আইইডিসিআর

লকডাউন না মানলে গুলির নির্দেশ!

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ২৬ মার্চ ২০২০  


২১ দিনের লকডাউন ঘোষণা করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এই লকডাউন সফল করতে কঠোর অবস্থানের কথা জানিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও।

রাজ্যের জনগণকে সতর্ক করে তিনি বলেন, এমন অবস্থা যাতে না হয় যে লকডাউন সফল করতে সেনা মোতায়েন করে ২৪ ঘণ্টার জরুরি অবস্থা ঘোষণা করতে হয়। আর এটি হলে দায়িত্বরত সেনাসদস্যের ‘দেখামাত্র গুলি’ করার নির্দেশ দিতে হতে পারে। খবর এনডিটিভির।

মঙ্গলবার (২৪ মার্চ)  প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির লকডাউনের ঘোষণার কয়েক ঘণ্টা পর গণমাধ্যমের কাছে এমন সতর্কবাণী দেন কে চন্দ্রশেখর। কার্যকর লকডাউনের জন্য রাজ্যের সব মন্ত্রী, বিধায়ক এবং হায়দরাবাদের স্থানীয় সরকারের কর্মীদের ‘রাস্তায় নেমে’ পুলিশকে সাহায্যের আহ্বান জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

তেলেঙ্গানায় এখন পর্যন্ত ৩৬ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে, এ ছাড়া সন্দেহভাজন হিসেবে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে আরও ১৯ হাজার মানুষকে। লকডাউনের সুযোগে কেউ বেশি দামে পণ্য বিক্রি করলেও ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন চন্দ্রশেখর।

সন্ধ্যা ৭টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত জরুরি অবস্থার কথা উল্লেখ করে মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রশেখর বলেন, এ সময় কাউকেই ঘরের বাইরে চলাচল করতে দেওয়া হবে না। জরুরি প্রয়োজন হলে ১০০ নম্বরে ফোন করতে হবে, পুলিশ সাহায্যে এগিয়ে আসবে। আর সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে সব দোকানপাট বন্ধ করতে হবে। এর এক মিনিট পর কোনো দোকান খোলা পাওয়া গেলে তাঁর লাইসেন্স বাতিল করা হবে।

এ ছাড়া এই রাজ্যে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা সবার পাসপোর্ট জব্দ করার নির্দেশ দিয়েছেন কে চন্দ্রশেখর। তিনি বলেছেন, কেউ কোয়ারেন্টিন না মানলে তার পাসপোর্ট বাতিল করা হবে।

গত ৩১ ডিসেম্বর চীনের হুবেই প্রদেশের উহানে প্রথমবারের মতো শনাক্ত হয় প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস। এরই মধ্যে বিশ্বের অন্তত ১৯৮টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে এই ভাইরাস। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত এতে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪ লাখ ৬৮ হাজার ৯০৫ জন। মারা গেছেন ২১ হাজার ২০০ জন। সূত্র : ওয়ার্ল্ডওমিটার

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার
এই বিভাগের আরো খবর