• বৃহস্পতিবার   ০১ অক্টোবর ২০২০ ||

  • আশ্বিন ১৬ ১৪২৭

  • || ১৩ সফর ১৪৪২

সর্বশেষ:
এইচএসসি-সমমান পরীক্ষার রুটিন প্রকাশ আগামী সপ্তাহে সিলেট বিভাগের আরও ৩৬ জনের করোনা শনাক্ত বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলার সব আসামি খালাস রিফাত হত্যা মামলার রায়, মিন্নিসহ ৬ জনের ফাঁসি আজমিরীগঞ্জে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার বিদায় সংবর্ধনা বাংলাদেশ থেকে সরাসরি যুক্তরাষ্ট্রে বিমান চলাচলে চুক্তি স্বাক্ষর
৩৭৭

মুহিতের পরিবারকে ঘিরে ‘অপপ্রচার’, সিলেটে তীব্র ক্ষোভ

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ২৬ জুন ২০২০  

সাবেক অর্থমন্ত্রী, সিলেট-১ আসনের সাবেক সাংসদ বয়োজ্যেষ্ঠ আবুল মাল আব্দুল মুহিত এবং তাঁর ছেলে শাহেদ মুহিতকে ঘিরে চলছে ‘অপপ্রচার’। এই অপপ্রচারের বিরুদ্ধে সিলেটের মানুষের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে। এ ধরনের অপপ্রচারকে সিলেটে মানুষের অন্তরে আঘাতের সামিল বলে মন্তব্য সবার।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী ফজলুল বারীর একটি পোস্ট ভাইরাল হয়। তাতে তিনি উল্লেখ করেন, সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত বর্তমানে ‘ক্ষমতাহীন’ হয়ে পড়ায় তাঁর ছেলে শাহেদ মুহিত তাঁকে বাসায় ‘জায়গা দিতে চাননি’। পরে প্রশাসনের লোকদের হস্তক্ষেপে ‘বাধ্য হয়ে’ শাহেদ তাঁর বাবা মুহিতকে বাসায় ‘জায়গা দেন’।

ফজলুল বারীর এই পোস্ট ঘিরে তীব্র ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে সিলেটে। তীব্র প্রতিবাদ জানাতে থাকেন নানা অঙ্গনের মানুষজন। শাহেদ মুহিতের পক্ষ থেকে প্রতিবাদ জানিয়ে বলা হয়, ‘জাতীয় দুর্যোগের এই কঠিন সময়ে অসাধু উদ্দেশ্যে এক বা একাধিক স্বার্থান্বেষী এবং কুরুচিপূর্ণ মহল আবুল মাল আব্দুল মুহিতের মতো একজন অত্যন্ত সম্মানীয় ব্যক্তি ও তাঁর পরিবারের সুনাম নষ্ট করার অপচেষ্টায় লিপ্ত হয়েছে। কেন বা কি কারণে তারা এমন করছে এটা আমাদের বোধগম্য নয়।’

আবুল মাল আব্দুল মুহিতের ঘনিষ্ঠজন হিসেবে পরিচিত এবং বর্তমান ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী এক ব্যক্তি ফেসবুকে সাবেক অর্থমন্ত্রীকে নিয়ে গুজব ছড়িয়েছেন। অপপ্রচার রটিয়ে বলা হচ্ছে, সাবেক এই মন্ত্রীকে তার ছেলে শাহেদ মুহিত নিজের বাড়িতে উঠতে দিতে চাইছেন না। বিষয়টি পুরোপুরি মিথ্যা, বানোয়াট ও বিভ্রান্তিকর।’

তিনি আরো বলেন, ‘আবুল মাল আবদুল মুহিত ও তার পরিবারের সঙ্গে আমার ২০ বছরের ওঠাবসা। সাবেক অর্থমন্ত্রীর ছেলের বউ এখনও নিজ হাতে সকাল, দুপুর ও রাতে মুহিত ভাইকে ওষুধ খাওয়ান। নিজের বাবার মতো শ্রদ্ধা করে যত্ন নেন। এ অর্থমন্ত্রী তার পারিবারিক জীবন অসাধারণ সুন্দরভাবে পার করছেন।’

সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেন ফেসবুকে লিখেছেন, ‘নিকৃষ্ট জীবের মতো আচরণ শুধু মানুষ নামের বিষাক্ত ব্যক্তির দ্বারাই সম্ভব। আমরা হতবিহ্বল, ধিক্কার জানানো ভাষা হারিয়ে গেছে। কথায় বলে আচরণেই বংশের পরিচয়। চামচিকার মাতব্বরি ক্ষণিকের। মানির মান আল্লাহ রাখবেন। রাব্বুল আলামিনের কাছে প্রার্থনা শয়তানকে হেদায়েত করুন, সম্মানিত সাবেক অর্থমন্ত্রী মহোদয় আমাদের সকলের মুরব্বি জনাব আবুল মাল আবদুল মুহিত সাহেব ও তাঁর পরিবারের ইজ্জতের হেফাজত করুন হে দয়াময়, আমীন।’

সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ ক্ষোভ প্রকাশ করে লিখেছেন, ‘বৃহত্তর সিলেটের কৃতি সন্তান, সিলেটবাসী যাকে নিয়ে গর্ব করে, সাবেক সফল অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত ও তার পরিবারকে নিয়ে এসব অপপ্রচারের নিন্দা জানাই।’

অপপ্রচারের নিন্দা জানিয়ে ফজলুল বারীর উদ্দেশ্যে সিলেটের প্রগতিশীল আন্দোলনের পরিচিত মুখ ও জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক আল আজাদ ফেসবুকে লিখেছেন, ‘প্রিয় ফজলুল বারী, মহান ভাষাসংগ্রামী, মুক্তিযুদ্ধের বীর সেনানী, সফল অর্থমন্ত্রী, লেখক, বুদ্ধিজীবী, পরিবেশবিদ ও স্পষ্টভাষী আবুল মাল আব্দুল মুহিতকে নিয়ে এমন একটি কাজ করে সিলেটবাসীর এতদিনের বিশ্বাসটা ভেঙে দিলেন।আর বলতে পারবো না, আমাদের একজন ফজলুল বারী আছেন। অনেক দূরে ঠেলে দিলেন আমাদেরকে। আমরা এই বৃদ্ধ মানুষটাকে যৌবনের প্রতীক মনে করে এখনো অসাধ্য সাধনের সাহস পাই-পাবো।’

কবি আবিদ ফয়সাল লিখেছেন, ‘‘আবুল মাল আবদুল মুহিত শাব্দিক অর্থেই সর্বমান্য একজন প্রবাদপুরুষ। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে সাধারণ নাগরিক তাঁকে সম্মান এবং শ্রদ্ধা করেন। এবং এটাই তাঁর যথার্থ প্রাপ্য। তাঁর দোষ কীর্তন-গার্হস্থ্য কাহন রচনা ভদ্রোচিত কাজ নয়। তাঁর কেন, কোনও মানুষের ব্যক্তিকজীবন নিয়ে কুৎসা রটনা করবার অধিকার কারও নেই।
মুহিতনিন্দুকদের প্রতি প্রার্থনা---‘এদের জ্ঞান দাও প্রভু, এদের ক্ষমা কোরো।’’

এরকমভাবে রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের শত শত ব্যক্তিকে অপপ্রচারের প্রতিবাদ জানিয়ে ফেসবুকে পোস্ট দিতে দেখা গেছে।

এদিকে, আবুল মাল আব্দুল মুহিতের পরিবারকে ঘিরে অপপ্রচারের নিন্দা জানিয়ে সিলেটের বিশ্বনাথে প্রতিবাদ সভাও হয়েছে। সভায় বিশ্বনাথ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এস এম নুনু মিয়া বলেন, ‘সিলেটবাসীর পিতৃতুল্য অভিভাবক সাবেক সফল অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত ও তাঁর পরিবারের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও কাল্পনিক নোংরা মন্তব্য করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে যে অপপ্রচার করা হচ্ছে সত্যিই তা দুঃখজনক ও নিন্দনীয়।’

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার
জাতীয় বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর