• মঙ্গলবার   ২৬ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১২ ১৪২৭

  • || ০৩ শাওয়াল ১৪৪১

সর্বশেষ:
শামসুদ্দিন হাসপাতালে রোগী ও কর্মরতদের ফল উপহার দিলেন সেলিনা মোমেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নরেন্দ্র মোদির ঈদ শুভেচ্ছা করোনা পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদের নামাজ আদায় দরিদ্রদের পাশে দাঁড়াতে বিত্তবানদের আহ্বান জানালেন রাষ্ট্রপতি করোনায় ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমিত ১৯৭৫, মৃতের সংখ্যা ৫০০ ছাড়াল প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের উপহার
৪০

বিকেল সাড়ে ৩টার মধ্যে হল না ছাড়লে ব্যবস্থা

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ৬ নভেম্বর ২০১৯  

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) সব আবাসিক শিক্ষার্থীকে আজ বিকেল সাড়ে ৩টার মধ্যে হল ছাড়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এ সময়ের মধ্যে হল না ছাড়লে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। বুধবার দুপুরে সাড়ে ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের বাসভবনে প্রভোস্ট কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

প্রভোস্ট কমিটির সভাপতি অধ্যাপক বশির আহমেদ জাগো নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, সিন্ডিকেট সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী গতকাল বিকেল সাড়ে ৪টার মধ্যে হল ছাড়ার নির্দেশ দেয়া হয়। দূর-দূরান্তের শিক্ষার্থীদের কথা বিবেচনা করে ওই নির্দেশনা নমনীয় থাকে। ইতোমধ্যে ছাত্রীদের হল খালি হয়ে গেছে। ছাত্র হলে অনেকেই এখনো অবস্থান করছে। তাদের বিকেল সাড়ে ৩টার মধ্যে হল ছাড়তে হবে। নইলে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে। হল সংলগ্ন খাবার দোকানগুলোও বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে আন্দোলনকারীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলার পর উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের সভাপতিত্বে সিন্ডিকেটের এক জরুরি সভায় অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্যাম্পাস বন্ধ ও বিকেল সাড়ে ৪টার মধ্যে শিক্ষার্থীদের হল ছাড়ার নির্দেশ দেয়া হয়। এরপর হল ছাড়ার সময়সীমা কয়েক দফায় পরিবর্তন করা হয়। সর্বশেষ বুধবার সকাল সাড়ে ৯টার মধ্যে হল ছাড়ার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানায় প্রশাসন। তবে আন্দোলনকারীরা হল খালি করার সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানান। তারা উপাচার্যের অপসারণ না হওয়া পর্যন্ত তাদের আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন।

বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের অপসারণ দাবিতে ফের আন্দোলন শুরু করেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। ক্যাম্পাসে তারা বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরনো প্রশাসনিক ভবনের সামনে সংহতি সমাবেশ করেন। সেখানে শিক্ষার্থীসহ গতকাল হামলার শিকার শিক্ষকরা তাদের ওপর হামলার বর্ণনা দেন।

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার
শিক্ষা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর