সোমবার   ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯   পৌষ ২ ১৪২৬   ১৮ রবিউস সানি ১৪৪১

সর্বশেষ:
জাতীয় স্মৃতিসৌধে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা সুনামগঞ্জে বাণিজ্য মেলার প্রবেশ টিকেট নিয়ে লটারি ব্যবসা! শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানাতে মানুষের ঢল বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা বিজয় দিবসের জন্য ইউএনওর ১ লাখ ৮০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি
৫৪

বাংলাদেশ কোচের বার্তা ‘তুমি প্রস্তুত থেকো’

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৩ আগস্ট ২০১৯  

‘তুমি প্রস্তুত থেকো।’

সপ্তাহখানেক আগে নির্দিষ্ট সংখ্যক খেলোয়াড়কে এমন বার্তাই দিয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের কোচ জেমি ডে। বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপের যৌথ বাছাইয়ে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচের জন্য এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশের দল ঘোষণা করা হয়নি। তবে নির্দিষ্টসংখ্যক খেলোয়াড়কে ব্যক্তিগতভাবে প্রস্তুত থাকার কথা বলেছেন বাংলাদেশ কোচ। অর্থাৎ জেমি খেলোয়াড়দের জানিয়ে দিয়েছেন তুমি দলে আছ। তাই নিজেকে প্রস্তুত রাখো।

১০ সেপ্টেম্বর আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপ বাছাই শুরু করবে বাংলাদেশ। গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের বাকি নেই এক মাসও। অথচ এখনো নিজেদের প্রস্তুতি সম্পর্কে চূড়ান্ত কিছু জানাতে পারেনি বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন। প্রাথমিক দলটাও খোলাসা করা হয়নি। তবে ইংল্যান্ড থেকে ২৭ জন খেলোয়াড়ের সঙ্গে যোগাযোগ করে প্রস্তুত থাকতে বলেছেন জেমি। তাদের জন্য অনুশীলন সূচিও পাঠিয়ে দিয়েছেন বাংলাদেশের ‘থিংক ট্যাংক।’

লিগ শেষ করে খেলোয়াড়েরা এখন ঈদের ছুটিতে। তবে কোচের নির্দেশনা মানলে আগামীকাল থেকেই অনুশীলনের জন্য মাঠে নেমে পড়ার কথা ২৭ জন খেলোয়াড়ের। ইংল্যান্ড থেকে প্রথম আলোকে এমনটাই জানিয়েছেন জেমি, ‘আমি ২৭ জন খেলোয়াড়কে প্রস্তুত থাকতে বলেছি। তাদের জন্য অনুশীলন সূচি করে দিয়েছি। ১৪ তারিখ থেকে সূচি অনুযায়ী অনুশীলন করার কথা রয়েছে সে সকল খেলোয়াড়ের।’

এতে একটি প্রশ্ন থেকেই যায়, সূচি অনুযায়ী ব্যক্তিগতভাবে নিজেকে আর কতটুকুই বা প্রস্তুত করা যায়? বিশেষ করে বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপের মতো বাছাইপর্বের আগে। আর ফুটবলের মতো দলীয় খেলায় ব্যক্তিগত প্রস্তুতি খুব একটা কাজে আসে না বলেই অনেকের মত। জেমির ঢাকায় ফেরার কথা রয়েছে ১৮ আগস্ট। বিশ্বস্ত সূত্রমতে ২৬ আগস্ট থেকে শুরু হবে জাতীয় দলের ক্যাম্প। অর্থাৎ লিগ শেষ করার প্রায় তিন সপ্তাহ বিরতি নিয়ে ক্যাম্পে যোগ দেবেন খেলোয়াড়েরা। এতে খেলোয়াড়দের কতটুকু প্রস্তুত পাওয়া যাবে, তা দেখার জন্য আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

বাছাইয়ের জন৵ তারুণ্যনির্ভর দল গড়ার ঘোষণা দিয়েছেন কোচ। জেমির সেই তরুণেরা কারা হবেন, পরিষ্কারভাবে তা ইঙ্গিত দিয়েছেন। শেষ ১৪ মাসে প্রতিটি ম্যাচে নিজেদের সেরাটা দেওয়া তরুণেরাই ঠাঁই পাবেন দলে। সে হিসেবে জেমির অধীনে আগে যাঁরা খেলেছেন, তাঁদের প্রাধান্যই বেশি থাকবে বলে বোঝা যাচ্ছে। সে ক্ষেত্রে বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপ মিশনে বাংলাদেশের লড়াইয়ে পুঁজি হতে পারে অনূর্ধ্ব-২৩ দলের ফুটবলাররা। যারা এশিয়ান গেমস ও এএফসি অনূর্ধ্ব-২৩ বাছাইপর্ব মাতিয়েছেন।

বাংলাদেশকে প্রথম ম্যাচটি খেলতে হবে তাজিকিস্তানে। আফগানিস্তান নিজেদের ‘হোম’ হিসেবে তাজিকিস্তানকে পেয়েছে বলে প্রথম আলোকে নিশ্চিত করেছেন আফগানিস্তান ফুটবল ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ফাজিল মোহাম্মদ সাহাব। কিন্তু বাফুফের ভাষ্যমতে ফিফা বা এএফসিকে আনুষ্ঠানিকভাবে নিজেদের ভেন্যু জানায়নি আফগানরা। ফলে পরিকল্পনা চূড়ান্ত করতে পারছে না বাফুফে। অন্তত দেশের ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থার দাবি সেরকমই।

প্রাথমিকভাবে কাতারে দিন দশেক অনুশীলন ক্যাম্প করার পরিকল্পনা ছিল বাফুফের। এখন তাজিকিস্তানে ভেন্যু হলে কাতারে অনুশীলন ক্যাম্প করতে চাইছে না তারা। এখন বরং ম্যাচের ৭-৮ দিন আগে তাজিকিস্তানে চলে গেলেই ভালো। কিন্তু কোনো কিছুই এখনো পর্যন্ত চূড়ান্ত নয়। এ ছাড়া ম্যাচটির আগে কোনো প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার বন্দোবস্ত করবে কি না বাফুফে, তেমন কিছুও শোনা যায়নি এখন পর্যন্ত। ঈদের আগে প্রথম আলোকে বাফুফে সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ বলেছিলেন, ‘আফগানিস্তান ভেন্যুটা নিশ্চিত না করায় আমরা একটু বিপাকেই পড়েছি। কাতার ক্যাম্প না করে কয়েক দিন আগে সরাসরি তাজিকিস্তান গিয়ে সেখানে অনুশীলন করলে দলের জন্যই ভালো। এ নিয়ে দুই তিন দিনের মধ্যে আমরা চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলব।’

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার
এই বিভাগের আরো খবর