• বৃহস্পতিবার   ০১ অক্টোবর ২০২০ ||

  • আশ্বিন ১৬ ১৪২৭

  • || ১৩ সফর ১৪৪২

সর্বশেষ:
এইচএসসি-সমমান পরীক্ষার রুটিন প্রকাশ আগামী সপ্তাহে সিলেট বিভাগের আরও ৩৬ জনের করোনা শনাক্ত বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলার সব আসামি খালাস রিফাত হত্যা মামলার রায়, মিন্নিসহ ৬ জনের ফাঁসি আজমিরীগঞ্জে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার বিদায় সংবর্ধনা বাংলাদেশ থেকে সরাসরি যুক্তরাষ্ট্রে বিমান চলাচলে চুক্তি স্বাক্ষর
২৯

ফেঞ্চুগঞ্জে নাটক সাজালেন পোস্ট মাস্টার, পণ্ড করল পুলিশ! 

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ৯ সেপ্টেম্বর ২০২০  

তুচ্ছ ঘটনায় প্রতিপক্ষকে মামলা দিয়ে ফাঁসাতে গিয়ে ফেঁসে গেলেন সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা যুধিষ্ঠিপুর পোস্ট মাস্টার আমজাদ হোসেন।

জানা যায়, পোস্ট মাস্টার আমজাদ হোসেনে পুত্র মুমিন হোসেনও ডাক পিয়ন। গত ৮ই সেপ্টেম্বর ডাক পিয়ন মুমিন হোসেন নিজ এলাকায় ছিনতাইয়ের শিকার হোন। ছিনতাইকারীরা ৩০ টি রেজিস্ট্রি চিঠি, নগদ ১লক্ষ ২০হাজার টাকা,কম্পিউটারের হার্ডডিস্ক ও মুমিনের ৫৫হাজার টাকা দামের মোবাইল নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে স্থানীয় কয়েকজনের নামে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন আমজাদ হোসেন।

অভিযোগ পেয়ে মালামাল উদ্ধারে ব্যাপক অভিযান চালান ফেঞ্চুগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ ও পুলিশের একটি দল। রাতে পুলিশ টিমকে বিভিন্ন সন্দেহজনক বাড়িতে নিয়ে যায় ডাক পিয়ন মুমিন হোসেন। মুমিন হোসেনের আচরণের একপর্যায়ে সন্দেহ হয় অফিসার ইনচার্জের। মুমিন হোসেনকে পর্যবেক্ষণ করতে থাকেন তিনি। একপর্যায়ে বেরিয়ে আসে আসল ঘটনা।

মুমিন হোসেনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে সে স্বীকার করে তার প্রতিবেশী ১০বছরের এক শিশুর সাথে কথা-কাটাকাটি হয় ও মুমিন ঐ শিশুকে চড়-থাপ্পড় মারে।এ নিয়ে ঐ শিশুর অভিভাবকদের সাথে বাকবিতন্ডতা হয় আমজাদ হোসেন ও মুমিন হোসেনের। এরই প্রতিশোধ হিসাবে তাদের সায়েস্তা করতেই তারা বাপ ছেলে মিলে সরকারি মালামাল ছিনতাইয়ের নাটক সাজান।

ফেঞ্চুগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল বাসার মোহাম্মদ বদরুজ্জামান জানান, পোস্ট মাস্টার আমজাদ হোসেন ও তার ছেলে পিয়ন মুমিন হোসেন মিথ্যা নাটক সাজিয়েছিলো। কিন্তু পুলিশের চোখ ফাঁকি দিতে পারেনি। মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করে জনসাধারণ ও পুলিশকে হয়রানির দায়ে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। অন্যদিকে পুলিশের এই বিচক্ষণতা কে সাধুবাদ জানিয়েছেন স্থানীয় জনতা।

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার
সিলেট বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর