• মঙ্গলবার   ০৪ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২০ ১৪২৭

  • || ১৪ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

সর্বশেষ:
করোনায় সিলেটে আরও পাঁচজনের মৃত্যু সিলেটের ভোলাগঞ্জে আবার চালু হচ্ছে দ্বিতল বাস সার্ভিস সুনামগঞ্জে শুভেচ্ছা উপহার পেলেন ১০০ শিল্পী বিশ্বম্ভরপরে ২০০ জন বন্যার্তকে আর্থিক সহায়তা প্রদান নবীগঞ্জে সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোকে বন্যা আশ্রয় কেন্দ্র ঘোষণা ৩০ বছর পর কাঁচা চামড়া রপ্তানির সুযোগ
১২৫

নতুন ব্ল্যাক হোল নিয়ে ঝড় উঠেছে বিজ্ঞানী মহলে

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ১০ ডিসেম্বর ২০১৯  

 


কৃষ্ণগহ্বর বা ব্ল্যাক হোল নামটার সঙ্গে কম-বেশি আমরা পরিচিত। বিজ্ঞানীরা বিষয়টি নিয়ে বহু বছর ধরে গবেষণা করে আসছেন। সে অনুযায়ী খুব বেশি সাফল্য আসেনি। তবে সম্প্রতি নাক্ষত্রিক-ভরের বিশাল কৃষ্ণগহ্বর খুঁজে পেয়েছেন গবেষকরা। এটির ভর সূর্যের ৭০ গুণ হওয়ায় আলোচনার ঝড় উঠেছে বিজ্ঞানী মহলে।
‘এলবি-১’ নামের এই কৃষ্ণগহ্বর সংশ্লিষ্ট সব তাত্ত্বিক ধারণার দিকেই চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছে। এটি পৃথিবী থেকে ১৫ হাজার আলোকবর্ষ দূরে অবস্থিত। নাসা বলছে, নাক্ষত্রিক-ভর কৃষ্ণগহ্বর হিসেবে এলবি-১ ‌‘অভিনব’। তবে, কৃষ্ণগহ্বর এর চেয়েও বড় হতে পারে তবে সেগুলোর গঠন প্রণালী ভিন্ন হয়। সূর্যের চেয়ে লাখো বা কোটি গুণও বড় হয় সেগুলো।


কৃষ্ণগহ্বরটির আবিষ্কারক দলের নেতৃত্বে ছিলেন ন্যাশনাল অ্যাস্ট্রোনোমিকাল অবজারভেটরি অব চায়না’র অধ্যাপক লিউ জিফেং। তার কথায়, এমন ভরসম্পন্ন কোনো কৃষ্ণগহ্বর আমাদের ছায়াপথে নেই, বর্তমানের কৃষ্ণগহ্বর তত্ত্ব এটিই বলছে। এতদিন গবেষকদের ধারণা ছিলো, কৃষ্ণগহ্বরে পরিণত হওয়ার আগে জীবনের শেষ ধাপে আমাদের ছায়াপথের নক্ষত্রগুলোর অধিকাংশ ভরই শেষ হয়ে যায়। কিন্তু সে তত্ত্ব মানলে, এলবি-১ কৃষ্ণগহ্বরটির তৈরিই হওয়ার কথা নয়।


এই আবিষ্কারটি নাক্ষত্রিক-ভরসম্পন্ন কৃষ্ণগহ্বরের গঠন মডেলগুলোকে আবারো পর্যালোচনা করতে বাধ্য করছে, এমনটাই বলছেন বিজ্ঞানীরা। তবে এটি নিয়ে সহসাই গবেষণা শেষ হচ্ছে না।

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর