বুধবার   ১১ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২৭ ১৪২৬   ১৩ রবিউস সানি ১৪৪১

সর্বশেষ:
বঙ্গবন্ধু বিপিএলের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী গোয়াইনঘাট-জৈন্তাপুরে ফসলের লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে গেছে দলে এখনো ‘মোশতাকদের’ পদচারণ রয়েছে: এম এ মান্নান সিলেটে বাল্যবিবাহ শূন্যের কোটায় নামাতে কাজ করছেন জেলা প্রশাসক সুনামগঞ্জে কোটি কোটি টাকার কাজে অনিয়ম পথচারীকে বাঁচাতে গিয়ে গুরুতর আহত পুলিশ সদস্য  ওলি-গলিতে গড়ে উঠেছে ভাঙ্গারী ব্যবসা, বাড়ছে চুরি সাতছড়ি উদ্যানে ফটোগ্রাফিক সোসাইটির বৃক্ষরোপন অভিযান
৩৩

চেয়ারম্যান সেলিনার অপসারণ দাবিতে লিখিত অভিযোগ

সিলেট প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১৪ নভেম্বর ২০১৯  

 


সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সেলিনা ইয়াসমিনের নানা কর্মকান্ডে অতিষ্ট হয়ে তার উপযুক্ত বিচার ও অপসারণ দাবি করে উপজেলা চেয়ারম্যান বরাবর লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার ৫টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যানগণ। 

আজ বৃহস্পতিবার ৫ জন ইউপি চেয়ারম্যান লেইস চৌধুরী, সুফিয়ানুল করিম, কাজী বদরুদ্দোজা, আহমেদ জিলু ও এমরান আহমেদের সিল ও সাক্ষরিত পত্রে উপজেলা চেয়ারম্যানকে জানান, উপজেলার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সেলিনা ইয়াসমিন বিভিন্ন সময় বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের জন্ম দিয়েছেন।

দায়িত্ব গ্রহনের পর থেকে নানা ভাবে সমালোচিত হচ্ছেন। গত ৫ নভেম্বর মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সেলিনা ইয়াসমিন উপজেলার কৃষি সভায় অনুপ্রবেশ করে ঝগড়া করেন মাইজগাঁও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সুফিয়ানুল করিমের সাথে। সেই সাথে সুফিয়ানুল করিমের বিরুদ্ধে ঘটনার দিন রাতে ফেঞ্চুগঞ্জ থানায় জিডিও দায়ের করেন। জিডি নং ২৩৩। এর পরের দিন সেলিনা ইয়াসমিন তার ফেইসবুক একাউন্টে আপত্তিকর একটি পোস্ট শেয়ার করে আবারো সমালোচনায় আসেন। এর আগে মুহলা ভাইস চেয়ারম্যান শপথ গ্রহণের দিন ধর্মানুভুতিতে আঘাত করে বক্তব্য বলেন ফেঞ্চুগঞ্জের মানুষ ধর্ম মানে না! এই বক্তব্যে কড়া সমালোচনার মুখে পড়েন তিনি। 

পত্রে চেয়ারম্যানগণ আরো উল্লেখ করেন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সেলিনা ইয়াসমিন ঘিলাছড়া এলাকার সরকারি গাছ চুরির ঘটনায় চুরদের পক্ষ নিয়ে তৎকালীন ফেঞ্চুগঞ্জ এসিল্যান্ডের সাথে আলাপ করেন তার ভয়েস রেকর্ড ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। এরপরে ফেঞ্চুগঞ্জে জঙ্গি নেই কিন্তু জঙ্গির শিকড় আছে এমন বক্তব্য দিয়ে আবারো সমালোচনা সৃষ্টি করেন।

তারা আরো উল্লেখ করেন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সেলিনা ইয়াসমিনের উপযুক্ত বিচার ও অপসারণ না হওয়া পর্যন্ত ৫ জন চেয়ারম্যানগণ উপজেলা পরিষদের কোন সভায় অংশ নিবেন না।

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার