• শুক্রবার   ০৪ ডিসেম্বর ২০২০ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২০ ১৪২৭

  • || ১৯ রবিউস সানি ১৪৪২

সর্বশেষ:
অ্যান্টিজেন টেস্ট, প্রস্তুত সিলেট শামসুদ্দিন হাসপাতাল করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে করণীয় নির্ধারণে সিলেট আসছেন পাটসচিব বিপুল উৎসাহে সিলেটে হাফ ম্যারাথন সম্পন্ন করোনায় আরও ২৪ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২২৫২ করোনায় আক্রান্ত সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নাহিদ  বসল পদ্মা সেতুর ৪০তম স্প্যান, দৃশ্যমান ছয় কিলোমিটার 

গোলাপগঞ্জ পৌর নির্বাচন, সম্ভাব্য প্রার্থীদের তৎপরতা শুরু

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ৬ নভেম্বর ২০২০  

চলতি বছরের ডিসেম্বরে পৌরসভার নির্বাচন হতে পারে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন। এখনো পৌরসভা নির্বাচনের তফশীল ঘোষণা করা হয় নি। তবে গোলাপগঞ্জ পৌর নির্বাচনকে সামনে রেখে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থীরা শুরু করেছেন নির্বাচনী তৎপরতা। ইতিমধ্যে সম্ভাব্য প্রার্থীদের অনেকেই ভোটারদের সঙ্গে কুশল বিনিময়, উঠান বৈঠক ও সভা-সমাবেশ অংশ নিচ্ছেন। বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে নির্বাচনী উপস্থিতির জানান দিচ্ছেন তারা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও ভোটারদের কাছে নিজেদের তুলে ধরার চেষ্টা করছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা। দলীয় মনোনয়ন পেতে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের সাথে লবিংও শুরু করেছেন তারা।

নির্বাচন সূত্রে জানা যায়, গোলাপগঞ্জ পৌরসভা প্রতিষ্ঠার পর থেকেই মেয়র পদটি রয়েছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের হাতে। পৌরসভার উপনির্বাচনসহ গেল দুই নির্বাচনে নৌকার পরাজয় হলেও বিজয় ছিনিয়ে নিয়েছিলেন আওয়ামী বিদ্রোহীরা। ২০১৫ সালে পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সিরাজুল জব্বার চৌধুরী বিজয়ী হন। ২০১৮সালের ৩১মে সিরাজুল জব্বার চৌধুরী মৃত্যুবরণ করলে ১১ জুলাই মেয়র পদটি শূন্য ঘোষনা করা হয়। পরে একই বছরের ৩অক্টোবর উপ-নির্বাচনে জয়লাভ করেন আওয়ামী বিদ্রোহী প্রার্থী আমিনুল ইসলাম রাবেল।

এবার পৌর নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী হতে দৌড়ঝাপ শুরু করেছেন গোলাপগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র আমিনুল ইসলাম রাবেল এবং উপজেলা আওয়াম লীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক ও সাবেক মেয়র জাকারিয়া আহমদ পাপলু। নৌকার মাঝি হতে ইতিমধ্যে তৎপরতা বৃদ্ধি করছেন তারা। ধর্ষণের সর্বোচ্চ রায় মৃত্যুদণ্ড করায় প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানিয়ে পৌর ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও সেচ্ছা সেবকলীগের ব্যানারে মঙ্গলবার (৩নভেম্বর) বিকালে পৌর এলাকায়  মিছিল ও সমাবেশ করেন রাবেল সমর্থিতরা। অনেকে মনে করছেন বিশাল এ শোডাউনের মাধ্যমে নির্বাচনী মহড়ার জানান দিয়েছেন তিনি। এদিকে ২৩অক্টোবর (শুক্রবার) রাতে পৌরবাসীদের সাথে মতবিনিময় সভায় মেয়র পদে প্রতিদ্বন্ধিতার জন্য প্রার্থীতা ঘোষনা করেন জাকারিয়া আহমদ পাপলু।

অপরদিকে জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থীরাও নির্বাচনী মাঠে তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন। জানা যায়, পৌর নির্বাচনের প্রতিটি নির্বাচনে বিএনপির দলীয় ও বিদ্রোহী প্রার্থী থাকলেও পরাজয় বরণ করতে হয় তাদের। তবে এবার ঐক্যবদ্ধ হয়ে পরাজয়ের বেদনা কাটাতে চায় তৃণমুল বিএনপি। দলীয় একটি সূত্র জানায়, এবছর পৌর নির্বাচনে একক প্রার্থী দিচ্ছে দলটি। নির্বাচনী মাঠে উপজেলা বিএনপি’র সাবেক আহবায়ক মহিউস্সুন্নাহ চৌধুরী নার্জিস ও পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি গোলাম কিবরিয়া চৌধুরী শাহিনের নাম আলোচনায় রয়েছে। তবে বিদ্রোহী প্রার্থী ছাড়া গোলাম কিবরিয়া চৌধুরী শাহিনকেই দলীয় একক প্রার্থী করা হতে পারে বলে জানা যায়।

তবে নির্বাচন ঘনিয়ে আসলে আরো প্রার্থীর অংশগ্রহণ বাড়তে পারে বলে ধারণা করছেন রাজনৈতিক সচেতন মহল।

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার