• রোববার   ২৯ নভেম্বর ২০২০ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৫ ১৪২৭

  • || ১৪ রবিউস সানি ১৪৪২

সর্বশেষ:
বীজ ও সার পেলেন ছাতকের ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকরা দক্ষিণ সুনামগঞ্জে বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত জগন্নাথপুর বাজারের প্রাচীনতম পুকুরের পরিচ্ছন্নতা শুরু করোনা : ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে সুস্থ ২৬ জন রায়হানের মৃত্যু অতিরিক্ত আঘাতেই

কাদার কারণে চলাচল অনুপযোগী ফেঞ্চুগঞ্জের রাস্তাসমূহ

সিলেট সমাচার

প্রকাশিত: ৮ নভেম্বর ২০২০  

সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জের উত্তর ফেঞ্চুগঞ্জ ইউনিয়নের ভেলকোনা, সুড়িকান্দি ও সাইলকান্দি এ তিন গ্রামের একমাত্র যাতায়াতের রাস্তাটির অবস্থা অত্যন্ত বেহাল। বর্ষাকালে এ রাস্তার উপর থাকে কোমর সমান পানি আর শুকনো মৌসুমে কাদাযুক্ত আর ময়লা-আবর্জনার কারণে এলাকাবাসীদের চরম দুর্ভোগের শিকার হতে হয়।

সম্প্রতি সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, প্রায় ২ কিলোমিটার দৈর্ঘ্য এই রাস্তাটি সম্পূর্ণ কাঁচা। মাঝেমধ্যে রাস্তার কিছু জায়গায় ইট সলিং আর কিছু অংশ ঢালাই থাকলেও সিংহভাগ স্থানে কাদা। রাস্তার মধ্যে কাদা থাকায় শুকনো মৌসুমেও সাঁকো ব্যবহার করে রাস্তার পারাপার করেন ভেলকোনা, সুড়িকান্দি ও সাইলকান্দি গ্রামের লোকজন। এরমধ্য ভেলকোনা পূর্বপাড়ার রাস্তাটি অবস্থা খুবই বেহাল।

স্থানীয় যুবক আইনুল ইসলাম বলেন, দীর্ঘদিন ধরে আমাদের রাস্তায় কোন কাজ হয়নি। আমাদের ৩ গ্রামের যাতায়াতের একমাত্র রাস্তাটি কাদার কারণে চলাচল অনুপযোগী। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা দীর্ঘদিন থেকে রাস্তার কাজ করে দিবেন বলে আশ্বাস দিচ্ছেন। বাস্তবে এখনো পর্যন্ত কোন কাজ হয়নি। এলাকাবাসীর উদ্যোগে রাস্তার মাটি ভরাট ও ইটসলিং কাজ করা হয়েছে।

ভেলকোনা গ্রামের জয়নুল আবেদীন বলেন, গ্রামের স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা এই কাদা রাস্তা দিয়ে চলচাল করতে অনেক বেশি সমস্যায় পড়েন। ছাত্রছাত্রীরা বর্ষাকালে নৌকা দিয়ে স্কুল কলেজে আসা-যাওয়া করতে হয়। এছাড়া অসুস্থ রোগীদের খুব কষ্টকরে নৌকা দিয়ে হাসপাতালে নিয়ে যেতে হয়। আমাদের দাবি, দ্রুত সময়ের মধ্যে রাস্তাটি পাকা করে এলাকাবাসীর দুর্ভোগ লাঘব করতে জনপ্রতিনিধিরা এগিয়ে আসবেন।

এ ব্যাপারে উত্তর ফেঞ্চুগঞ্জ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এমরান আহমদ বলেন, অন্য একটা রাস্তার আরসিসি ঢালাই কাজ হয়েছে। বরাদ্দ আসলে মাটি ভরাট করে পর্যায়ক্রমে এই রাস্তারও কাজ করা হবে।

ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা এলজিইডি সহকারী প্রকৌশলী ওয়াজিবুর রহমান বলেন, এমপি সাহেব এই রাস্তার ডিও লেটার দিয়ে রাখছেন। প্রকল্পের অনুমোদন আসলে আমরা কাজ করবো।

সিলেট সমাচার
সিলেট সমাচার